ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ২৮ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১, ১৮ ফাল্গুন, ১৪২৭, বসন্তকাল, ১৯ রজব, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

বিরোধী দলের সঙ্গে বসতে ‘অনুনয় বিনয়’ ইমরানের, দাবি মরিয়ম নওয়াজের

অনলাইন ডেস্ক

নিরাপদ নিউজ

বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনায় বসার  জন্য অনুরোধ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, এমন দাবি করেছে পাকিস্তানে পিএমএল-এনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ। তবে এ নিয়ে ইমরানের দল কোনো মন্তব্য করেনি। পাকিস্তানের গণমাধ্যম ডন এ কথা জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি সেশনের আগে বিরোধী দলের সঙ্গে এক বৈঠকে মরিয়ম বলেন, আপনারা শুনলে অবাক হবেন, বিরোধীদলীয়রা কিভাবে আমাদের কাছে অনুনয় বিনয় করেছে। তিনি বলেন, বিরোধী দল উপযুক্ত সময়ে পদত্যাগপত্র জমা দেবে। অযোগ্য সরকার আর ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। সেই সঙ্গে ২০২১ সালকে নির্বাচনী বছর ঘোষণা দিয়েছেন মরিয়ম।

এদিকে মরিয়ম বলেছিলেন যে পিএমএল-এন সরকারকে জবাবদিহিতা আইন পরিবর্তন করতে দেবে না, সেই সঙ্গে  বর্তমানে যারা ক্ষমতায় আছেন, তারা জাতীয় জবাবদিহি ব্যুরোর মুখোমুখি হবেন।

এদিকে পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল-এন) সংসদ সদস্যরা যেকোনো ইস্যুতে সরকারের সঙ্গে আলোচনার সম্ভাবনা প্রত্যাখ্যান করেছেন । তারা প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে অবিশ্বাস প্রস্তাব উত্থাপনের জন্য পাকিস্তান পিপলস পার্টির প্রস্তাবকে ‘অবর্ণনীয়’ বলেও ঘোষণা করেছে।  এদিকে মরিয়ম তার টুইটারে  নওয়াজ শরিফকে ‘অভূতপূর্ব’ বলে অভিহিত করেছেন এবং বলেছেন যে পিএমএল-এন সত্যই একটি আদর্শিক দল হয়ে উঠেছে।

বৈঠকে রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি কিছু সাংগঠনিক বিষয়েও কথা হয়েছে। দুই ঘণ্টার দীর্ঘ বৈঠকের পর দলটি পিএমএল-এন সংসদ সদস্যদের দ্বারা গৃহীত  প্রস্তাবের একটি অনুলিপি গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। নওয়াজ শরিফ শুধু গুরুতর সমস্যার সঠিক কারণগুলো দেখিয়েছেন তা নয়, প্রমাণ করেছেন যে এই কঠিন  সত্য জনগণের সামনে তুলে ধরে তিনি সত্যই দেশপ্রেমিক। বৈঠকে দলীয় সভাপতি শেহবাজ শরিফ, হামজা শেহবাজ এবং খাজা আসিফ ও সৈয়দ খুরশিদ শাহকে অযৌক্তিকভাবে গ্রেপ্তার ও আটকের নিন্দা জানানো হয়েছে।

পিএমএল-এন এর দাবি, পাকিস্তান দ্রুত দেশে এবং বাইরের দেশে একটি ‘ব্যর্থ রাষ্ট্র’ হয়ে উঠছে। একদিকে জাতীয় সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে এবং একদিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পাকিস্তানের ভাবমূর্তি কলুষিত করা হয়েছে।

বৈঠকে চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর (সিপিসি) বিলের বিরুদ্ধেও নিন্দা জানানো হয়েছে।  ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার চীন সফরের আগে সিপিইসি কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠার জন্য একটি অধ্যাদেশ জারি করেছিলেন এবং বাজওয়াকে তার চেয়ারপারসন নিযুক্ত করেছিলেন। এর আগে পরিকল্পনা ও উন্নয়ন মন্ত্রণালয় সিপিসি প্রকল্পগুলোর তদারকি করত।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x