English

28 C
Dhaka
মঙ্গলবার, মে ২৪, ২০২২
- Advertisement -

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় লাশ হলেন ৩ নসিমন আরোহী

- Advertisements -

চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে একটি অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে (লেবেল ক্রসিং) ট্রেনের ধাক্কায় একটি নসিমনের চালক ও ২ আরোহীসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। আজ সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল পৌনে ৯টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলস্টেশনের প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে আলীনগর হাজির মোড় নামক স্থানে (পৌর ৩ নম্বর ওয়ার্ড) মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের আলীনগর ভুতপুকুর মহল্লার মৃত আব্দুল গনি ওরফে গরিবুল্লার ছেলে মো. ফুলচাঁন (৪৯), একই মহল্লার মৃত রইসউদ্দিনের ছেলে সেহের আলী (৪৫) ও সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের আমনুরা কেন্দুল গ্রামের মানিক চাঁদের ছেলে মো. নাইমুল (৩৯)। এদের মধ্যে নাইমুল নসিমন চালক ও আরোহী অপর দু’জন মাছ ব্যবসায়ী।

Advertisements

তারা সম্পর্কে মামা ও ভাগ্নে। সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিউমার্কেট মাছবাজারে মাছ বিক্রি করে প্রতিদিনের মতো বাড়ি ফিরছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর (আরএনবি) হাবিলদার মো.নাসিম বলেন, রেললাইনের ওপর নসিমনটি আটকে গেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলস্টেশন ছেড়ে আসা ট্রেনটি নসিমনটিকে ধাক্কা দিয়ে ছেঁচড়ে কিছুদূর নিয়ে যায়। ট্রেনের ধাক্কায় নসিমনে থাকা ওই ৩ জন নিহত হন। এসময় নসিমনটি লাইনের ওপর আটকে যায় ও ট্রেনটি থেমে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা মরদেহ উদ্ধার করে রেললাইনের পাশে সারি করে রাখেন এবং নসিমনটি লাইন থেকে সরিয়ে দিলে পুনরায় ট্রেন গন্তব্যের উদ্দেশে যাত্রা করে।

এসময় মরদেহগুলো ঘিরে স্বজনদের আহাজারিতে পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে। বাড়ির নিকটে হঠাৎ এমন মৃত্যুতে স্বজনদের বিলাপে উপস্থিত অনেককেই চোখ মুছতে দেখা যায়। শত শত মানুষ ভিড় করেন মরদেহ দেখতে। কিন্তু মরদেহ এতটাই ছিন্ন ভিন্ন ছিল যে তা দেখার উপযোগী নয়।

Advertisements

চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার শহিদুল আলম বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঈশ্বরদীগামী ৬ ডাউন লোকাল ট্রেনে দুর্ঘটনাটি ঘটে। তিনি আরও বলেন, ওই ক্রসিংয়ে কোনো গেট নাই বা কোনো জনবল বরাদ্দ নাই। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের।

মরদেহ সুরতহালকারী চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফারুক আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

এদিকে, ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চাঁপাইনববাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক এ.কে.এম গালিভ খান, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলমসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ। জেলা প্রশাসক তাৎক্ষণিক নিহতদের পরিবারপিছু নগদ ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করেন। তিনি রেল কর্তৃপক্ষকে অরক্ষিত ক্রসিংয়ের ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। স্থানীয়রাও অরক্ষিত রেল ক্রসিংটিতে গেট ও গেটম্যান দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন