English

28 C
Dhaka
বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০২২
- Advertisement -

আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি: উন্নয়নে যথাযথ ব্যবস্থা নিন

- Advertisements -

করোনাকালেও থেমে নেই খুন, ছিনতাই, ধর্ষণের মতো অপরাধমূলক ঘটনা। গত কয়েক দিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর ও নানা অপরাধের ঘটনা থেকে এটা স্পষ্ট যে দেশের সামগ্রিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। সামান্য কারণেও খুনের ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেও মানুষের অপরাধপ্রবণতা কমেনি, বরং বেড়েছে। করোনাকালেও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি অবশ্যই উদ্বেগের। বরগুনার আমতলীতে বাড়িতে একা পেয়ে চাচাতো বোনকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক বখাটের বিরুদ্ধে।

গত শনিবার সকালে কুড়িগ্রামের রাজীবপুরে এক ব্যবসায়ীকে ছুরির ভয় দেখিয়ে সাড়ে ১০ লাখ টাকা লুট করেছে ছিনতাইকারীরা। কক্সবাজারের পেকুয়ায় গত শুক্রবার গভীর রাতে ঘরে ঢুকে এক যুবককে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারা ইউনিয়নে ধান কাটা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

Advertisements

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় একটি ব্যাংকের এজেন্টের কাছ থেকে ১৪ লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে ভাগ-বাটোয়ারার সময় তিন ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ। তাঁদের কাছ থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা উদ্ধার এবং দুটি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে পুলিশ। তবে বাকি টাকা নিয়ে অন্য তিন ছিনতাইকারী পালিয়ে যায়।

ভোলার চরফ্যাশনে জোড়া খুনের ১৪ দিন পর পোড়া দুই লাশের মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাঙামাটিতে নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। যশোরে সাবেক স্ত্রীর দায়ের করা ধর্ষণের মামলায় পুলিশের এক কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বরগুনায় কলাগাছ লাগানো নিয়ে বাগবিতণ্ডার সময় হামলায় আহত একজন মারা গেছেন।

Advertisements

গণমাধ্যমে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির এত ঘটনা থেকে দেশের সচেতন মানুষ দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হবে, এটাই স্বাভাবিক। প্রশ্ন উঠতে পারে, হঠাৎ করে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটল কেন? করোনাকালেও কেন বন্ধ হচ্ছে না নৃশংস অমানবিকতা? ধারণা করা যেতে পারে, এক শ্রেণির মানুষ পুলিশ-প্রশাসন, বিচারব্যবস্থা, মানবিক মূল্যবোধ—কোনো কিছুরই তোয়াক্কা করছে না।

এখনই আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির লাগাম টেনে ধরতে না পারলে আগামী দিনে পরিস্থিতি সামলানো কঠিন হয়ে যাবে। দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন যেসব ঘটনা ঘটছে, তা অশুভ ইঙ্গিতই বহন করছে। এ কথা ঠিক যে আমাদের সামাজিক অবক্ষয় চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে।

সরকারের কাছে জনসাধারণের প্রধান দাবি নিরাপত্তা, সব ধরনের অপরাধ থেকে সুরক্ষা। কাজেই আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে আরো তৎপর হতে হবে। নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন