English

35 C
Dhaka
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪
- Advertisement -

আওতায় আসুক সব হাসপাতাল: ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সেবা

- Advertisements -
দেশের দরিদ্র মানুষের কাছে এখনো প্রধান ভরসা সরকারি হাসপাতাল। অভিযোগ আছে, সেখানেও রোগীরা ঠিকমতো সেবা পায় না। সরকারি হাসপাতালের অনেক চিকিৎসককে কর্মসময়ের মধ্যেও নিজ কর্মক্ষেত্রে পাওয়া যায় না। তাঁরা ওই সময় প্রাইভেট ক্লিনিক বা হাসপাতালে ছুটে বেড়ান। অনেক চিকিৎসক নামে-বেনামে একাধিক ক্লিনিক খুলে ব্যবসা করছেন। ‘সিনিয়র’ চিকিৎসকদের মধ্যে এই প্রবণতা বেশি দেখা যায়। তদুপরি সরকারি হাসপাতালে দালালের উৎপাত তো আছেই। উপজেলা পর্যায়ের অনেক হাসপাতালে নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের এক-চতুর্থাংশকেও হাসপাতালে পাওয়া যায় না। সরকারি হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনসহ অনেক যন্ত্রপাতিই বিকল হয়ে থাকে।মানুষ সুস্থ হওয়ার জন্য হাসপাতালে যায়। কিন্তু ব্যতিক্রম ছাড়া বাংলাদেশে বোধ হয় এমন কোনো সরকারি হাসপাতাল খুঁজে পাওয়া যাবে না, যে হাসপাতালে সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষ তৃপ্ত। অভিযোগের তো অন্ত নেই। ঠিক এ অবস্থায় এক ছাদের নিচে ইমার্জেন্সি রোগীর অত্যাধুনিক সব সেবা প্রদানের একটি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, মিটফোর্ড হাসপাতাল ও সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মডেল হিসেবে চালু করা হয়েছে ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস সেন্টার। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ইউএসএইড সহায়তা করেছে।

ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সার্ভিস হচ্ছে, জরুরি চিকিৎসায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি। এতে রোগীর বিভিন্ন প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য অন্য কোথাও যেতে হবে না। থাকবে সার্জারি, মেডিসিন, গাইনি, শিশু ও অন্যান্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে মেডিক্যাল টিম। প্রয়োজনে এখানেই রোগীর জরুরি অপারেশনের ব্যবস্থা করা হবে। যেকোনো রোগী ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসা নিতে পারবে। জরুরি রোগীর সেবায় অত্যাধুনিক ল্যাব সাপোর্ট, আলট্রাসনোগ্রাম, ইসিজি, পোর্টেবল এক্স-রেসহ প্রায় সব ধরনের রোগ নির্ণয় সুবিধা থাকবে। চিকিৎসা কর্মকর্তা ছাড়াও এখানে সার্বক্ষণিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সেবা পাওয়া যাবে। চিকিৎসকদের পাশাপাশি জরুরি রোগীর সুষ্ঠু ও মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করতে নার্স, প্যারামেডিক, ওয়ার্ডবয় ও পরিচ্ছন্নতাকর্মী থাকবেন।

জরুরি রোগীর প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এখানে জরুরি অস্ত্রোপচারের সুবিধাও পাবে। গুরুতর রোগীর প্রয়োজনে এখানে রয়েছে মেকানিক্যাল ভেন্টিলেশন ও চার শয্যার আইসিইউ সাপোর্ট। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জরুরি রোগী ভর্তি অথবা অবজারভেশনে রেখে চিকিৎসা করার ব্যবস্থা থাকবে।

রোগীর উন্নত ও বিশেষায়িত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড হাসপাতালে নেওয়ার জন্য এখানে রয়েছে ২৪ ঘণ্টা অ্যাম্বুল্যান্স সেবা। জরুরি রোগীর প্রয়োজনে ব্যবহৃত বেশির ভাগ ওষুধ এখানে থাকবে। অর্থাৎ একই ছাতার নিচে থাকবে সব চিকিৎসাসেবা। গত সোমবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে একটি ওএসইসি কেন্দ্র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে দেশের সব জেলা হাসপাতালে ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সেবা (ওএসইসি) খোলা হবে।

দেশের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থায় ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সেবা নতুন সংযোজন। এই ব্যবস্থা স্বাস্থ্যসেবা ক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে সাধারণ রোগীদের আস্থা অর্জন করবে। সব হাসপাতাল ওয়ানস্টপ ইমার্জেন্সি সেবার আওতায় আসুক—এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন