English

26 C
Dhaka
বুধবার, এপ্রিল ১৭, ২০২৪
- Advertisement -

প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন: সড়ক ও সেতু নিয়ে জনদুর্ভোগ

- Advertisements -
অবকাঠামো খাতে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। পদ্মা সেতু, কর্ণফুলীর তলদেশ দিয়ে বঙ্গবন্ধু টানেলের মতো এমন অনেক অবকাঠামো তৈরি হয়েছে, যেসব একসময় ছিল প্রায় অকল্পনীয়। কিন্তু এর বিপরীত চিত্রও দেখা যায় গ্রামীণ অবকাঠামোর ক্ষেত্রে।সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর অনিয়ম, অবহেলা ও অদক্ষতার কারণে দেশের অনেক স্থানেই জনগণকে ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
নির্মাণে ধীরগতি কিংবা বছরের পর বছর লেগে যাওয়ায় স্থানীয় লোকজনের যে ভোগান্তি পোহাতে হয়, তা অত্যন্ত পীড়াদায়ক। আবার নিম্নমানের নির্মাণকাজের জন্য সড়ক বা সেতু টেকসই হয় না। গত দুই দিনে এ রকম বেশ কয়েকটি খবর প্রকাশিত হয়েছে।
জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার খাগকান্দা থেকে নয়নাবাদ যাওয়ার প্রধান সড়কের দুটি সেতুই দেবে গিয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে।
সেতুর দুই পাশের মাটিও সরে গেছে। মানুষ সেতুর ওপর বাঁশের সাঁকো বানিয়ে কোনো রকমে চলাচল করলেও কোনো যানবাহন চলতে পারে না। চার বছর ধরে এমন অবস্থা চললেও হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ কমানোর কোনো উদ্যোগ নেই।
অপর এক খবরে বলা হয়, পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার লক্ষ্মীকুণ্ডা ইউনিয়নের চরকুড়ুলিয়ায় সাত কোটি চার লাখ টাকা ব্যয়ে ৯৬ মিটার দীর্ঘ একটি সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০২১ সালে এবং কাজ শেষ করার কথা ছিল ২০২২ সালে।
কিন্তু কয়েকটি পিলার নির্মাণের পর প্রায় দুই বছর ধরে সেতুর কাজ বন্ধ রয়েছে। এতে আটটি গ্রামের ১০ থেকে ১৫ হাজার মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের হাজীগঞ্জ পৌরসভার টোরাগড় হয়ে হাজীগঞ্জ বড়কুল ফেরিঘাট-বড়কুল ইউনিয়ন সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে।
২০১৮ সালে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও আজও সেতুটি জনগণের চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়নি। সেতুর উত্তর পারের সংযোগ সড়ক নির্মিত না হওয়ায় এলাকার হাজার হাজার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
শুধু বিলম্বই নয়, নির্মাণকাজের মান নিয়েও রয়েছে অনেক অভিযোগ। গতকালই কালের কণ্ঠে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অধীনে তিন কোটি ২২ লাখ টাকার সড়ক সংস্কার কাজে নিম্নমানের ইট, আরসিসি ঢালাইয়ে নিম্নমানের সিমেন্ট, বালু ও লোহা ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। গত বছর নরসিংদী সদর উপজেলার চর দিঘলদিতে নির্মাণকাজ শেষ করার দিনই ধসে পড়ে প্রায় কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত একটি সেতু।
অনেক স্থানেই সেতু বানানো হয়েছে, কিন্তু সংযোগ সড়ক হয়নি। ফলে মানুষ তা ব্যবহার করতে পারছে না। এমন অব্যবস্থাপনা কেন?
প্রকল্প নেওয়া হয় জনসাধারণের চলাচলের সুবিধা বৃদ্ধি ও দুর্ভোগ লাঘবের জন্য, দুর্ভোগ বাড়ানোর জন্য নয়। আমরা আশা করি, জনগণের দুর্ভোগ কমাতে সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলো দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।
সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ

আল কোরআন ও আল হাদিস

- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন