English

33 C
Dhaka
শনিবার, অক্টোবর ১, ২০২২
- Advertisement -

অবিলম্বে গ্রেপ্তার করুন: সিরাজগঞ্জে অস্ত্রের মহড়া

- Advertisements -

দেশে অপরাধপ্রবণতা দিন দিন বাড়ছে। বিশেষ করে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শুরুর পর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। ঘটেছে প্রাণহানির ঘটনাও। কোথাও কোথাও অস্ত্র প্রদর্শনের ঘটনা ঘটেছে। আর বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জে যা ঘটে গেল তা নিয়ে কী বলবে প্রশাসন।

Advertisements

জাতীয় নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসবে, রাজনীতির মাঠ ততই উত্তপ্ত হবে। এখন খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে আন্দোলন জমানোর চেষ্টা করছে বিএনপি। জেলায় জেলায় সমাবেশ করছে তারা। এ ধরনের রাজনৈতিক সমাবেশ যেখানেই হোক না কেন, সেখানে উত্তেজনা সৃষ্টি হতেই পারে। বিশেষ করে উভয় পক্ষ যদি মুখোমুখি অবস্থানে যায়, তাহলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতেই পারে। সে ক্ষেত্রে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনকে আগে থেকেই সচেতন থাকতে হবে। কারণ রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতা এখন চরম পর্যায়ে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। অবস্থা বিবেচনা করেই সচেতন নাগরিকদের পক্ষ থেকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে পুলিশের বিশেষ অভিযান পরিচালনার আহ্বান জানানো হয়েছিল।

গত নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে মাঠ পর্যায়ের পুলিশকে নির্দেশ দেয় পুলিশ সদর দপ্তর। অবৈধ অস্ত্রের যথেচ্ছ ব্যবহার বন্ধে মাঠ পর্যায়ে সতর্ক হওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। একটি নির্দিষ্ট এলাকায় কতজনের কাছে বৈধ অস্ত্র আছে, সে সম্পর্কে থানার অবহিত থাকে। সব থানায় ‘গান রেজিস্টার’ আছে। নির্বাচনের আগে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর চোখ এড়িয়ে অনেকে বৈধ অস্ত্র দেখান। এর ফাঁকে অনেকে অবৈধ অস্ত্র নিয়েও ঘোরাফেরা করবেন, এমন সন্দেহও একেবারে অমূলক নয়। সিরাজগঞ্জে কি তেমনটিই ঘটেছে? সেখানে অস্ত্রের এমন প্রকাশ্য ব্যবহার কী করে সম্ভব হলো?

বিএনপি দাবি করছে, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে আয়োজিত সমাবেশে মিছিল নিয়ে আসার পথে পূর্বপরিকল্পিতভাবে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছেন। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের দাবি, বিএনপির নেতাকর্মীরা শহরের ইসলামিয়া কলেজ মাঠে সমাবেশে যাওয়ার পথে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক স্লোগান দেন এবং ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেন। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

Advertisements

সিরাজগঞ্জে প্রকাশ্যে আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির জন্য একটি অশনিসংকেত। প্রশ্ন উঠতে পারে, অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা শুরু হয়ে গেছে। এই অস্ত্রের মহড়া কি তারই প্রমাণ?

অস্ত্রধারীদের ছবি গণমাধ্যমে এসেছে। আমরা চাই তাঁদের গ্রেপ্তার করে আইনের মুখোমুখি করা হোক।

Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন