English

26 C
Dhaka
সোমবার, নভেম্বর ২৮, ২০২২
- Advertisement -

অভিনেতা-নির্মাতা আবদুস সাত্তারের আজ দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী

- Advertisements -
Advertisements
Advertisements

অভিনেতা-নির্মাতা আবদুস সাত্তারের আজ দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৯ আগস্ট, ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল মাত্র ৭৭ বছর। প্রয়াত এই গুণি অভিনেতার প্রতি জানাই গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।
তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।
আবদুস সাত্তার ১৯৪১ খ্রিষ্টাব্দের ১ জানুয়ারি, মুন্সীগঞ্জ শহরের জমিদার পাড়ায়, জন্মগ্রহণ করেন। ছোটবেলা থেকেই নাটক ও অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ ছির তাঁর। এক সময় মঞ্চনাটকে অভিনয় শুরু করেন, পরবর্তিতে টেলিভিশন নাটকে অভিনয় করেন।
আবদুস সাত্তার নিকটজনদের কাছে ‘তোতা ভাই’ নামে পরিচিত ছিলেন। তিনি অসংখ্য টিভি নাটক রচনা করেন। অভিনয়ের পাশাপাশি নাটক পরিচালনাও করতেন।
তাঁর রচিত ‘ত্রিরত্ন’ নাটকটি ছিলো তৎকালীন পূর্বপাকিস্তান তথা বাংলাদেশের টেলিভিশনের প্রথম ধারাবাহিক হাসির নাটক। এই নাটকটি বাংলাদেশ টেলিভিশনের এক মাইলফলক, ইতিহাস সৃষ্টকারী জনপ্রিয় নাটক।
স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশ টেলিভিশন এ প্রচারিত প্রথম নাটকটিও ছিল তাঁর রচিত।
আবদুস সাত্তার অভিনেতা হিসেবে যেসব ছবিতে ছিলেন তারমধ্যে- সাতভাই চম্পা, অশান্ত ঢেউ, স্মৃতি তুমি বেদনা, কসাই, কাজলরেখা, রাখে আল্লাহ মারে কে, গুনাইবিবি, ফয়সালা, চাচা-ভাতিজা, অন্যতম।
আবদুস সাত্তার প্রযোজিত ও পরিচালিত ছবি- অশান্ত ঢেউ, রাখে আল্লাহ মারে কে, ফয়সালা, চাচা-ভাতিজা, প্রভৃতি।
টেলিভিশন নাটকের একজন জনপ্রিয় অভিনেতা ছিলেন আবদুস সাত্তার। তিনি উল্লেখযোগ্যসংখ্যক টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন। যারমধ্যে রয়েছে- সকাল সন্ধ্যা, মাটির কোলে, পার্ল, ভন্ডুল, এখন জোয়ার, এখানে নোঙর, সময় অসময়, প্রভৃতি।
নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি বিটিভির বিভিন্ন ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের নাটিকায়ও অভিনয় করতেন। ঈদের ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘আনন্দমেলা’য় তাঁর উপস্থিতি থাকত সবসময়। জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’তে নিয়মিত অভিনয় করতেন। নব্বই দশকে বিটিভির আরেক জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘শুভেচ্ছা’য় ‘ভুলভুল ভাই’ নামে একটি মজার চরিত্রে অভিনয় করে বেশ জনপ্রিয় হয়েছিলেন তিনি।
চলচ্চিত্র নির্মাতা, নাট্যকার, প্রযোজক ও বর্ষিয়ান অভিনেতা আবদুস সাত্তার। একজন দক্ষ অভিনেতা হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন তিনি। অভিনয়কে ভালোবাসতেন, ভালোবাসতেন নাটক ও চলচ্চিত্রকে। তাইতো একসময় চল‌চ্চিত্র নির্মান করতে গিয়ে অর্থ সংকটে পরলে নিজের বাড়ি বিক্রি করে দেন অনায়াসে । চল‌চ্চিত্র ও অভিনয়ই ছিল তাঁর সবচেয়ে ভালোবাসার জায়গা।
শিল্প-সংস্কৃতির সুহৃদ অভিনেতা আবদুস সাত্তার, থাকবেন চিরঅম্লান- তাঁর কর্মের মাধ্যমে।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন