English

33 C
Dhaka
শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪
- Advertisement -

চোখের পলকে ২৫টা বছর পার হয়ে গেল: ফেরদৌস

- Advertisements -

নাসিম রুমি: এক সময় দুই বাংলার সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি দাপিয়ে বেড়িয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস। তবে বর্তমানে কলকাতার সিনেমায় তাকে দেখা না গেলেও নিয়মিতই কাজ করছেন দেশের সিনেমায়। পাশাপাশি বিভিন্ন অনুষ্ঠান উপস্থাপনা ও রাজনীতির মাঠে হরহামেশা দেখা মিলছে তার।

কিছুদিন আগেই মুক্তি পায় ফেরদৌস অভিনীত ‘১৯৭১: সেই সব দিন’। সিনেমাটি মুক্তির পর দেশ-বিদেশে দারুণ প্রশংসিত হয়। এর বাইরেও মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার প্রায় হাফ ডজন সিনেমা। পাশাপাশি বেশ কয়েকটি সিনেমার শুটিং নিয়েও ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। তুমুল ব্যস্ততাকে সঙ্গী করেই ক্যারিয়ারের ২৫ বছর পার করেছেন ফেরদৌস।

Advertisements

প্রয়াত নায়ক সালমান শাহ অভিনীত ‘বুকের ভেতর আগুন’ সিনেমাটির অসমাপ্ত কাজে যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন এই অভিনেতা। তবে তাকে নায়ক হিসেবে খ্যাতি ও জনপ্রিয়তা এনে দেয় ‘হঠাৎ বৃষ্টি’। ১৯৯৮ সালে মুক্তি পাওয়া এই সিনেমাটি ব্যবসাসফল হওয়ার পাশাপাশি ফেরদৌস-প্রিয়াঙ্কার অভিনয়ও নজর কাড়ে দর্শক-সমালোচকদের।

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার ছবিটিতে ফেরদৌসের সঙ্গে প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদীর রসায়ন মন জিতে নেয় দর্শকের।

বাসু চ্যাটার্জী নির্মিত ছবিটির ২৫ বছর পূর্ণ হয়েছে সম্প্রতি। এ উপলক্ষে ‘হঠাৎ বৃষ্টি’র চিত্রনাট্য ও শিল্পী-কুশলীদের অভিজ্ঞতা জড়ো করে একটি বই সম্পাদনা করেছেন ছটকু আহমেদ। সম্প্রতি ‘চিত্রনাট্য ও অন্যান্য প্রসঙ্গ’ শীর্ষক এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন এবং ছবিটির ২৫ বছর পূর্তি উদযাপন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয় চ্যানেল আইয়ের ছাদ বারান্দায়।

এতে উপস্থিত ছিলেন ‘হঠাৎ বৃষ্টি’র নায়ক ফেরদৌস। এছাড়া ছবিটির প্রযোজক হাবিবুর রহমান খান, ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড ও চ্যানেল আই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, চিত্রনায়ক রিয়াজ, নির্মাতা মুশফিকুর রহমান গুলজারসহ অনেকে।

Advertisements

নিজের সিনেমার ২৫ বছর পূর্তিতে বেশ উচ্ছ্বসিত ফেরদৌস বলেন, ‘চোখের পলকে যেন ২৫টা বছর পার হয়ে গেল। বেশ নান্দনিক একটা আয়োজনের মাধ্যমে চলচ্চিত্রের কিছু অসাধারণ মানুষ এবং কিংবদন্তি নির্মাতা, প্রযোজকদের সাথে নিয়ে চ্যানেল আই পরিবারের সঙ্গে আমরা হঠাত্ বৃষ্টি বইটির মোড়ক উন্মোচন করছি।

কৃতজ্ঞতা জানাই আমার পিতৃতুল্য, হঠাত্ বৃষ্টির প্রযোজক হাবিব আংকেলকে, আমাকে এই অসাধারণ বইটি উপহার দেওয়ার জন্য। ধন্যবাদ প্রিয় পরিচালক ছটকু ভাইকে, অসীম সাহসী এই উদ্যোগ নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক বইটি প্রকাশ করার জন্য।

আপনি সুযোগ দিয়েছেন বলেই আজ আমি ফেরদৌস হয়েছি। আপনি কষ্ট করেছেন বলেই আজ এই বইটি প্রকাশিত হয়েছে।’

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন