English

31 C
Dhaka
সোমবার, জুলাই ২২, ২০২৪
- Advertisement -

পুরো প্রক্রিয়াটাই ছিল ঈদে আমাকে আটকানোর চেষ্টা: শাকিব খান

- Advertisements -
Advertisements

নাসিম রুমি: লিডার– আমিই বাংলাদেশ’ সিনেমার পরিচালক তপু খান ও তাঁর টিম প্রতিটি হলে খোঁজখবর নিচ্ছিলেন। ঢাকার হলগুলোতে দর্শকের আগ্রহের কথা ফোনে জানান। পরে পুরো দেশের হলের খবর আসে। ফলে ঈদের আনন্দ আরও বেশি অনুভব করি। এখানে আরও একটা কথা বলা প্রয়োজন, যেখানে বলিউড, দক্ষিণী সিনেমা, এমনকি নেপালের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি এগিয়ে যাচ্ছে, সেখানে আমাদের ইন্ডাস্ট্রি তো থমকে আছে। এ পরিস্থিতিতে লিডার নিয়ে দর্শক মাতামাতি করছে– এমন সাফল্যের খবরে সত্যিকার আনন্দটাই লাগে।

উৎসবের ছবি উৎসবের মতো হওয়া লাগে। সিনেমায় সব একশতে একশ হতে হয়। তাহলেই তার প্রতি সবার আগ্রহ জাগে। এই ছবির গল্প ভালো। প্রতিবাদ, সাধারণ মানুষের মধ্যে জাগরণ, অনিয়ম আর সামাজিক সচেতনতার গল্প বলা হয়েছে এতে। ছবির দুটি গান বেশ সাড়া ফেলেছে। ভালো গান কিন্তু দর্শকের কাছে সিনেমার বিজ্ঞাপন। আর আমাকে যাঁরা ভালোবাসেন, তাঁরা গত এক বছরে আমার নতুন ছবি দেখতে পাননি। তাঁদের মধ্যে একটা আগ্রহ ছিল। সব মিলিয়েই হয়তো দর্শক ছবিটির প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছেন।

Advertisements

একটু খেয়াল করলে সবাই বুঝতে পারব, তার পুরো প্রক্রিয়াটাই ছিল আমার ছবি আটকে দেওয়া চেষ্টা বা নীলনকশা। অস্ট্রেলিয়ায় আমার বিরুদ্ধে মামলা হবে আর আমি সেখান থেকে ফিরে আসব। সেখান থেকে এসে আরেকবার অস্ট্রেলিয়ায় গিয়েছি আমি। আমার নামে সেখানে অভিযোগ থাকলে তো সেখানকার পুলিশ আমাকে ছেড়ে দিত না। অথচ হুট করে কোথা থেকে এসে রহমত উল্লাহ আমার নামে অভিযোগ দায়ের করলেন। যে প্রযোজক সমিতিতে তিনি অভিযোগ দিলেন, তিনি তো সেখানকার সদস্যও নন। প্রযোজক নেতারা কিছু চেক না করেই বিষয়টি বড় করে ফেললেন। যখন কোনোভাবেই আটকাতে পারলেন না, ঠিক তখন ঈদের আগে ফের এসে মামলা করলেন যেন ঈদের ছবিতে প্রভাব পড়ে। এর পেছনে কারও হাত আছে, আমাকে আটকে রাখার অসৎ উদ্দেশ্য আছে।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন