English

31 C
Dhaka
সোমবার, আগস্ট ৮, ২০২২
- Advertisement -

প্লেনের ভেতর করোনা পজিটিভ যাত্রীর ৩ ঘণ্টা কাটলো বাথরুমে

- Advertisements -

বাবা ও ভাইয়ের সঙ্গে আইসল্যান্ডএয়ারের একটি ফ্লাইটে শিকাগো থেকে আইসল্যান্ডে যাচ্ছিলেন মারিসা ফোটিও নামে এক নারী। তবে তাদের আসল গন্তব্য ছিল সুইজারল্যান্ড। আইসল্যান্ডের রেইক্যাভিক নেমে সেখান থেকে সুইজারল্যান্ডের ফ্লাইট ধরার কথা ছিল তাদের। কিন্তু রওয়ানা দেওয়ার পরে মাঝআকাশেই করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন মারিসা, যার কারণে ফ্লাইটের বাকি সময় প্লেনের বাথরুমে বসে কাটাতে হয়েছে তাকে।

Advertisements

সিএনএনের খবর অনুসারে, প্লেনে ওঠার আগে শিকাগোয় থাকতে দু’বার পিসিআর এবং পাঁচবার র্যাপিড করোনা টেস্ট করিয়েছিলেন মারিসা। দুই ডোজ টিকা নেওয়ার পর সম্প্রতি বুস্টার ডোজও নিয়েছেন। তিনি স্থানীয় একটি স্কুলের শিক্ষক। টিকা না নেওয়া শিশুদের সংস্পর্শে নিয়মিত যাওয়ায় কিছুদিন পরপর করোনা টেস্ট করাতেন এ নারী। এর আগে যতবার টেস্ট করিয়েছেন, প্রতিবারই ফলাফল নেগেটিভ দেখিয়েছে। কিন্তু অবকাশযাপনে যখন সুইজারল্যান্ড রওয়ানা দিলেন, তখন মাঝপথেই করোনা পজিটিভ আসে তার।

জানা যায়, প্লেনে ওঠার আগেও পুরোপুরি সুস্থ ছিলেন মারিসা। কিন্তু প্লেন উড়তে শুরু করার ঘণ্টা দেড়েক পরেই গলার ভেতর খুসখুস করতে থাকে তার। তখন মনের সন্দেহ দূর করতে প্লেনের ভেতরই করোনা টেস্টের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে দেখা যায়, ফলাফল পজিটিভ।

Advertisements

মারিসা জানান, তিনি বাথরুমে বসে করোনা টেস্টের ফলাফল দেখেন। ওই সময় প্লেনটি আটলান্টিক মহাসাগরের ওপর ছিল। ফলে তিনি খুবই ঘাবড়ে যান।

মারিসা বলেন, আমি প্রথমেই যে ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্টের কাছে দৌড়ে যাই, তার নাম রকি (আসল নাম রাগনহিলদুর ইরিক্সদোত্তির)। আমি উন্মাদের মতো ছিলাম, আমি কাঁদছিলাম। আমার পরিবারের জন্য চিন্তায় ছিলাম, যাদের সঙ্গে মাত্রই রাতের খাবার খেয়ে এসেছি। প্লেনের অন্য লোকদের জন্যও চিন্তা হচ্ছিল, নিজের জন্য তো অবশ্যই।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন