English

30 C
Dhaka
শুক্রবার, মার্চ ১, ২০২৪
- Advertisement -

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ১কোটি ৯৮লাখ ৪হাজার ৪২০জন, সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১কোটি ২৭লাখ ২১হাজার ১৮৬জন

- Advertisements -
Advertisements
Advertisements

বিশেষ প্রতিনিধিঃ দক্ষিণ আমেরিকার দেশসমূহের মধ্যে বৈশ্বিক মহামারী করোনার আগ্রাসন সবচেয়ে বেশী ব্রাজিল,কলোম্বিয়া,আর্জেন্টিনা,পেরু ও চিলি’তে।এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, ভারত,সাউথ আফ্রিকা,মেক্সিকোতে এর থাবা চলছে অবিরাম।বাংলাদেশে করোনার পরীক্ষা তুলনামূলক অনেক কম স্বত্বেও আক্রান্তের দিক থেকে উঠে এসেছে ১৫তম স্থানে। এদিকে কলোম্বিয়া পেছনে ফেলেছে চিলিকে ।কলোম্বিয়ার অবস্থান এখন বিশ্বে ৮ম।গত ২৪ ঘন্টায় আর্জেন্টিনা টপকেছে তুরস্ককে।আর্জেন্টিনা উঠে এসেছে ১৭ নম্বরে।
আজ রোববার (৯ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৯৮ লাখ ৪ হাজার ৪২০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২ লাখ ৬০ হাজার ৮৫৮ জন। নতুন করে প্রাণ গেছে ৫ হাজার ৫১৬ জনের। এ নিয়ে করোনারায় মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ৭ লাখ ২৯ হাজার ৫৯১ জন মানুষ।
আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ২৭ লাখ ২১ হাজার ১৮৬ জন।গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার ৬১৯ জন।বিশ্বে বর্তমানে মধ্যম মানের আক্রান্ত ৬২ লাখ ৮৮ হাজার ৪৮৩ জন বা ৯৯% এবং গুরুতর অসুস্থ্য ৬৫ হাজার ১৬০ জন বা ১%।
যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ ৫১ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৩ জন।গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৫৪ হাজার ১৯৯ জন। সবচেয়ে বেশি মৃত্যুও হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৭০ জন।গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৯৭৬ জনের। আক্রান্তের মতো সুস্থ হওয়ার দিক থেকেও সবার শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ২৬ লাখ ৩৮ হাজার ৪৭০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন।
আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই উঠে এসেছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ লাখ ১৩ হাজার ৩৬৯ জন।গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৪৬ হাজার ৩০৫ জন। আর আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ লাখ ৫৪৩ জন।গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত্যু ৮৪১ জনের। এখন পর্যন্ত ব্রাজিলে ২০ লাখ ৯৪ হাজার ২৯৩ জন সুস্থ হয়েছেন।
গত ২৪ ঘন্টায় প্রতিবেশী দেশ ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৬৫ হাজার ১৫৬ জন।মৃত্যু হয়েছে ৮৭৫ জনের। আক্রান্তের সংখ্যায় ভারত উঠে এসেছে ৩ নম্বরে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২১ লাখ ৫২ হাজার ২০ জন, আর এখন পর্যন্ত মৃত্যু ৪৩ হাজার ৪৫৩ জনের।ভারতে সুস্থ হয়েছেন ১৪ লাখ ৭৯ হাজার ৮০৪ জন।
আক্রান্তে চতুর্থ অবস্থানে রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮ লাখ ৮২ হাজার ৩৪৭ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৫ হাজার ২১২ জন আর মারা গেছেন ১৪ হাজার ৮৫৪ জন।অপরদিকে সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ৯০ হাজার ২০৭ জন।
সাউথ আফ্রিকায় মোট আক্রান্ত ৫ লাখ ৫৩ হাজার ১৮৮ জন।২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৭ হাজার ৭১২ জন।মোট মারা গেছেন ১০ হাজার ২১০ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৪ লাখ ৪ হাজার ৫৬৮ জন।
পেরুতে মোট আক্রান্ত ৪ লাখ ৭১ হাজার ১২ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৭ হাজার ১৩৭ জন। মোট মৃত্যু ২০ হাজার ৮৪৪ জন।২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত্যু ১৯৫ জনের। আর সুস্থ্য হয়েছেন ৩ লাখ ১৯ হাজার ১৭১ জন।
মেক্সিকোতে মোট আক্রান্ত ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৪০৭ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৬ হাজার ৭১৭ জন। মোট মৃত্যু ৫১ হাজার ৩১১ জনের।গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মৃত্যু ৭৯৪ জনের। এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৩ লাখ ১৩ হাজার ৩৮৬ জন।
কলোম্বিয়া মোট আক্রান্ত ৩ লাখ ৭৬ হাজার ৮৭০ জন। মারা গেছেন ১২ হাজার ৫৪০ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৪ হাজার ৫৯১ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৯ হাজার ৬৭৪ জন।মৃত্যু ২৯০ জনের।
চিলিতে মোট আক্রান্ত ৩ লাখ ৭১ হাজার ২৩ জন।মোট মৃত্যু ১০ হাজার ১১ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৩ লাখ ৪৪ হাজার ১৩৩ জন।
স্পেনে আক্রান্ত ৩ লাখ ৬১ হাজার ৪৪২ জন।মৃত্যু ২৮ হাজার ৫০৩ জন আর সেরে উঠেছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৫৮ জন।
ইরানে মোট আক্রান্ত ৩ লাখ ২৪ হাজার ৬৯২ জন।মোট মৃত্যু ১৮ হাজার ২৬৪ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৮২ হাজার ১২২ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ২ হাজার ১২৫ জন এবং মৃত্যু ১৩২ জনের।
এর পরের অবস্থানে যুক্তরাজ্য, এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৯ হাজার ৭৬৩ জন। মারা গেছেন ৪৬ হাজার ৫৬৬ জন।
সৌদিআরবে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৮৭ হাজার ২৬২ জন।মোট মৃত্যু ৩ হাজার ১৩০ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৫০ হাজার ৪৪০ জন।
পাকিস্তানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৮৩ হাজার ৪৮৭ জন।মোট মৃত্যু ৬ হাজার ৬৮ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৫৯ হাজার ৬০৪ জন।
ইতালিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার ১০৩ জন।দেশটিতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৩৫ হাজার ২০৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।আর ইতিমধ্যে ইতালিতে সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ১ হাজার ৯৪৭ জন।
আর্জেন্টিনায় মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৪১ হাজার ৮১১ জন। মারা গেছেন ৪ হাজার ৫২৩ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৮ হাজার ২৪২ জন।গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৬ হাজার ১৩৪ জন এবং মৃত্যু ১১২ জনের।
তুরস্কে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৩৯ হাজার ৬২২ জন।মোট মৃত্যু ৫ হাজার ৮২৯ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ২২ হাজার ৬৫৬ জন।
জার্মানিতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ১৬ হাজার ৮৯৬ জন।মোট মৃত্যু ৯ হাজার ২৬১ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৪০০ জন।
ফ্রান্সে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৯৭ হাজার ৯২১ জন। মারা গেছেন ৩০ হাজার ৩২৪ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৮২ হাজার ৮৩৬ জন।
এদিকে করোনা আক্রান্তে ১৫তম বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬১১ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৫৫ হাজার ১১৩ জন।গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩২ জন। দেশে করোনায় মোট মারা গেছেন ৩ হাজার ৩৬৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও এক হাজার ২০ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৪৬ হাজার ৬০৪ জনে।
শনিবার (৮ আগস্ট) দুপুরে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।
মোট ৮৪টি পিসিআর-ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে তিনি জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ হাজার ৫২৯টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে ১১ হাজার ৭৩৭টি নমুনা। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ১২ লাখ ৪৯ হাজার ৫৬০টি। নতুন পরীক্ষায় করোনা মিলেছে দুই হাজার ৬১১ জনের মধ্যে। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল দুই লাখ ৫৫ হাজার ১১৩ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৩২ জনের। ফলে ভাইরাসটিতে মোট মৃত্যু হলো তিন হাজার ৩৬৫ জনের।
গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের পুরুষ ২৫ জন এবং নারী সাতজন। এ পর্যন্ত মৃতদের ম‌ধ্যে দুই হাজার ৬৫৫ জন পুরুষ এবং ৭১০ জন নারী। গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতা‌লে মারা গেছেন ৩১ জন এবং বা‌ড়িতে মৃত্যু হয়েছে একজনের। এদের মধ্যে ২০ বছরের বেশি বয়সী একজন, চল্লিশোর্ধ্ব ‌চারজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ১২ জন, ষাটোর্ধ্ব ১০ জন, সত্তরোর্ধ্ব চারজন ও ৮০ বছরের বেশি বয়সী একজন ছিলেন। ১৬ জন ছিলেন ঢাকা বিভাগের, চারজন চট্টগ্রাম বিভাগের, পাঁচজন খুলনা বিভাগের, চারজন রাজশাহী বিভাগের, দুজন সি‌লেট বিভা‌গের এবং একজন ছিলেন ব‌রিশাল বিভাগের।
শনিবারের বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ২২ দশমিক ২৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৪২ শতাংশ। আর রোগী শনাক্ত তুলনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩২ শতাংশ।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন