English

28 C
Dhaka
রবিবার, মে ২৬, ২০২৪
- Advertisement -

আদালতে ট্রাম্পের মুখোমুখি সেই পর্নতারকা

- Advertisements -

পর্নতারকা স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে ঘুষ দেওয়ার মামলায় আগামী ১৫ এপ্রিল রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিচার শুরু হবে। নিউ ইয়র্কের একটি আদালত এ তথ্য জানিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো কোনো ফৌজদারি মামলায় ট্রাম্পের বিচার শুরু হতে যাচ্ছে। এতে করে ম্যানহাটনের আদালতে ট্রাম্পের মুখোমুখি হবেন পর্ন তারকা স্টর্মি।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০০৬ সালে স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে তার যৌন সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। পরে ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এ বিষয়ে মুখ না খুলতে ট্রাম্পের পক্ষ থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার ঘুষ দেওয়া হয়েছিল স্টর্মিকে। এবার সে মামলায় বিচারের কাজ শুরু হবে। জুরি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আগামী সোমবার এ বিচার শুরু হতে যাচ্ছে। স্টর্মি ড্যানিয়েলস সেখানে সাক্ষ্য দেবেন।

Advertisements

২০১৮ সালে নিজের লেখা বই ‘ফুল ডিসক্লোজার’ ও পিকক চ্যানেলের জন্য নির্মিত তথ্যচিত্র ‘স্টর্মি’তে ট্রাম্পের সঙ্গে নেভাডা গলফ রিসোর্টে দেখা হওয়ার ‘দুর্ভাগ্যজনক’ স্মৃতিগুলো বর্ণনা করেছেন স্টর্মি ড্যানিয়েলস। জানা যায়, ২০০৬ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে প্রথম দেখা হওয়ার সময় ড্যানিয়েলসের বয়স ছিল ২৭ বছর। আর ট্রাম্পের বয়স ছিল ৬০ বছর। এর মাত্র চার মাস আগে ট্রাম্পের তৃতীয় স্ত্রী মেলানিয়া তাদের সন্তান ব্যারনের জন্ম দিয়েছেন।

ড্যানিয়েলস বলেন, ট্রাম্পের এক দেহরক্ষী তাকে তার (ট্রাম্প) হোটেলের রুমে নৈশভোজের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। প্রামাণ্যচিত্রের জন্য দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে স্টর্মি ড্যানিয়েলস বলেন, তাদের মধ্যে ভালো আলোচনা হয়েছে। যৌনতাসংক্রান্ত কোনো আলাপ হয়নি। পর্নশিল্পের ব্যবসায়িক দিক নিয়ে ট্রাম্প বিশেষ আগ্রহ দেখিয়েছিলেন।

Advertisements

স্টর্মি বলেন, ‘তিনি (ট্রাম্প) আমাকে বলেছিলেন যে, আমাকে দেখে তার মেয়ের কথা মনে হয়। আমি ভেবেছিলাম আমাদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধার জায়গা আছে।’ তবে এরপর ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য হয়েছিলেন বলে উল্লেখ করেন স্টর্মি। স্টর্মি জানান, পরের বছরও ট্রাম্পের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। কারণ, ট্রাম্প প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, স্টর্মিকে তার টেলিভিশন অনুষ্ঠানে নিয়ে যাবেন। ওই অনুষ্ঠানের নাম ‘দ্য সেলিব্রিটি অ্যাপ্রেনটিস’। তবে তা আর হয়নি। পরে স্টর্মি ড্যানিয়েলস ট্রাম্পের ফোন ধরা বন্ধ করে দেন।

ওই পর্নতারকা আরও বলেন, ট্রাম্প তাকে তার হোটেলের পেন্টহাউস স্যুটে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। সেখানে তাদের মধ্যে যৌন সম্পর্ক হয়। তবে ট্রাম্পের দাবি, স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে এমনটা কখনো ঘটেনি। যদিও ২০১৬ সালের নির্বাচনের আগে পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েলসকে মুখ বন্ধ করার জন্য ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। ট্রাম্পের সঙ্গে স্টর্মি ড্যানিয়েলসের সম্পর্ক গোপন রাখার বিনিময়ে এই ঘুষ দিয়েছিলেন তিনি।

ঘুষ দেওয়ার এই মামলাটি ৭৭ বছর বয়সী ট্রাম্পের জন্য ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা চালিয়ে যাওয়াকালীন বেশ কয়েকটি আইনি ঝামেলার মধ্যে একটি। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চারটি ফৌজদারি মামলা হয়েছে এবং নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এ মামলায় আদালতকক্ষে তাঁকে হাজির হতে হচ্ছে।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন