English

29 C
Dhaka
বুধবার, জুন ২৬, ২০২৪
- Advertisement -

ইসরায়েলের ‘স্বর্গের মতো’ যে গ্রাম এখন মৃত্যুপুরী

- Advertisements -
ফিলিস্তিনের সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস গত ৭ অক্টোবর শত শত রকেট হামলা চালিয়ে ইসরায়েলে অনুপ্রবেশ করে। এরপর শুরু হয় হামাস ইসরায়েল যুদ্ধ। হামাস ইসরায়েলের কিছু গ্রামেও হামলা চালায়। গতকাল বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ইসরায়েলের এমনি একটি গ্রাম নির ওজে নিহত বন্ধুর শেষকৃত্যে অংশ নিয়েছিলেন শচার বাটলার।
তাঁর দাবি হামাসের হামলায় এ গ্রামের এক চতুর্থাংশ বাসিন্দা নিহত বা নিখোঁজ হয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এপির প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় বাটলারের। তিনি বলেন, ‘এ গ্রামের বাসিন্দারা অনেক সুখে ছিলেন। চারদিকে সবুজের সমারোহ ছিল।

এখন ভেঙে পড়া বাড়ি এবং বুলেটের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামে কেবলই লাশের গন্ধ।’ 

বাটলার জানান, হামলার সময় মানুষ ঘরের ভেতরে ছিল। বাড়ির ভেতর থাকা অবস্থায় তাদের জ্বালিয়ে দেওয়া হয়।

বাটলার তিন সন্তানের জনক।

৭ অক্টোবর হামাসের হামলার সময় তিনি এ গ্রামেই ছিলেন। বলেন, ‘যারাই বাড়ির বাইরে বের হয়েছে তাদের অপহরণ বা হত্যা করা হয়েছে। কাউকে আবার জবাই করা হয়। এটা অকল্পনীয় ঘটনা।’ 

এপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ইসরায়েলের ২০টির বেশি ক্ষতিগ্রস্থ শহর ও গ্রামের মধ্যে ‘নির ওজ’ একটি।

এখানে হামাস গাজা উপত্যকা থেকে রকেট হামলা চালায়। গ্রামের বাসিন্দারা চাষবাদ ও কারখানায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ এখনো এ গ্রামে লাশ শনাক্তের কাজ করছে। 

নির ওজ গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, গ্রামের জনসংখ্যার এক-চতুর্থাংশ হামলার শিকার হয়েছে। নিহত হয়েছেন অনেকে এবং বেশ কয়েকজনকে গাজায় জিম্মি করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

রন বাহাত (৫৭) নামের এক বাসিন্দা বলেন, সব মিলিয়ে নির ওজের প্রায় ১০০ জন মারা গেছে বা নিখোঁজ হয়েছে। সৌভাগ্যক্রমে তাদের ঘরের দরজা ভাঙতে পারেনি হামাসের সৈন্যরা।

রন বাহাত আরো জানান, নির ওজ গ্রামের রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় এখন ভাঙা ঘর, সিলিং ফ্যান, উঠানে পচে যাওয়া খাবার, শিশুদের সাইকেল, খেলনা দেখা যায়। অনেক গাড়ির জানালা গুলি করে ভেঙে ফেলা হয়েছে। কমলা রং দিয়ে এসব গাড়িতে ফিলিস্তিনি ভাষায় কিছু লেখা হয়েছে। কোনো ঘরের দরজায় এখনো রক্তের দাগ আছে।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন