English

27 C
Dhaka
বুধবার, জুলাই ৬, ২০২২
- Advertisement -

এখন সময় বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন করার: বাইডেন

- Advertisements -

নির্বিচার গুলিবর্ষণে এবার ইলেমেন্টারি স্কুলের ১৮ শিশু শিক্ষার্থীসহ ২১ জনের প্রাণ ঝরলো যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে। এর ১০ দিন আগে নিউইয়র্ক স্টেটের বাফেলোতে একটি গ্রোসারী স্টোরে নির্বিচার গুলিবর্ষণে মারা গেছে ১০ জন কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকান। মঙ্গলবারের এই গণহত্যার ঘটনাটি এ বছরের সবচেয়ে ভয়ংকর এবং সবচেয়ে বেশী মানুষের প্রাণ কেড়ে নিল।

Advertisements

২০১২ সালে কানেকটিকাট স্টেটের স্যান্ডিহুকে একটি স্কুলে নির্বিচার গুলিবর্ষণের পর এটি হচ্ছে বড় ধরনের আরেকটি নৃশংসতা। সর্বশেষ মঙ্গলবারের বন্দুকধারীর বয়স ১৮ এবং সে একটি হাইস্কুলের ছাত্র বলে তদন্ত কর্মকর্তারা জানান।

মেক্সিকো সীমান্ত থেকে ৫০ মাইলের ভেতরে এই বন্দুকধারীর নাম হচ্ছে সালভেদও র‌্যামোজ অর্থাৎ সে স্প্যানিশ। ১০ দিন আগে বাফেলোর বন্দুকধারি প্যাটোন এস জেনড্রন ছিল শ্বেতাঙ্গ। কৃষ্ণাঙ্গদের উত্থানে অতিষ্ঠ হয়ে সে বন্দুক হামলা চালানোর কথা কোর্টে স্বীকার করেছে। টেক্সাসের এই বন্দুকধারী অবশ্য পুলিশের গুলিতে অকুস্থলেই নিহত হয়েছে। ফলে তার মোটিভ জানা সম্ভব হয়নি তাৎক্ষণিকভাবে। এ বছর এ যাবত যুক্তরাষ্ট্রে নির্বিচার গুলিবর্ষণের ২১৫টি ঘটনা ঘটলো বলে গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ থেকে জানা গেছে।

Advertisements

এসব ঘটনার প্রতিটিতে চারজনের অধিক মানুষ হতাহত হয়েছে। গান ভায়োলেন্স্ আর্কাইভ সূত্রের তথ্য অনুযায়ী গত বছর নির্বিচার গুলিবর্ষণের ৬৯৩টি ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে ২৮টির প্রতিটিতে কমপক্ষে চার জনের মৃত্যু হয়। এসব গুলিবর্ষণের অধিকাংশই করোনার প্রভাবে ঘটে বলে মনে করা হয়েছে। এ বছর করোনার তাণ্ডব অনেকটা কমলেও বন্দুকধারিদের তৎপরতা কমেনি। জানা গেছে, করোনাকালিন ২০২০ সালে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে ৬০০টি। এসবের প্রতিটিতে গড়ে চারজনের অধিক হতাহত হয়। তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালে এ সংখ্যা ছিল ৪১৭। অর্থাৎ দিন যত গড়াচ্ছে বন্দুক-নৃশংসতা বাড়ছে।

মঙ্গলবারের পরিস্থিতির পর উদ্বিগ্ন, হতাশ এবং ক্রোধান্বিত প্রেসিডেন্ট বাইডেন চেষ্টা করেছেন কংগ্রেসের ব্যর্থতার প্রতি ইঙ্গিত করতে যে, কেন তারা বন্দুক নিয়ন্ত্রণেরে বিধি তৈরীতে সক্ষম হচ্ছে না। বাইডেনের মতে, তিনি এমন একটি দেশের নেতা হয়েছেন যেখানে নির্বিচার গণহত্যার ঘটনা কমছে না। কমার কোনো লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না। একজন বাবা যিনি তার দুটি সন্তানকে হারিয়েছেন, এক ব্যক্তি যিনি সম্ভবত: যে কোন জীবিত রাজনীতিকের চেয়ে বেশী কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছেন। একের পর এক চ্যালেঞ্জের সম্মুৃখীন হচ্ছেন। ট্র্যাজেডি থেকে জাতিকে পরিত্রাণের অভিপ্রায়ে সান্তনা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। টেক্সাসের উভেল্ড সিটির ইলেমেন্টারি স্কুলে শিশু শিক্ষার্থীদের নির্বিচারে হত্যার সংবাদ জানার কয়েক ঘণ্টা পর হোয়াইট হাইজের রুজভেল্ট রুম থেকে ৭ মিনিটের আবেগঘন বক্তব্যে বাইডেনের প্রশ্ন-কেন আমরা এমন হত্যাযজ্ঞকে নিত্য সঙ্গী করে বাঁচতে চাচ্ছি? কেন আমরা এমন পরিস্থিতিকে চলতে দিচ্ছি? কোথায় আমাদের ঈশ্বরের প্রতি আনুগত্যের মেরুদণ্ড? বাইডেন উল্লেখ করেন, এখন সময় হচ্ছে এই কষ্টবোধকে শক্তিতে পরিণত করে নির্বিচার গুলিবর্ষণের ঘটনা বন্ধে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন করা।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন