English

31 C
Dhaka
মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০২৪
- Advertisement -

কলম্বিয়ায় পানির অভাব, সাধারণ মানুষকে গোসল না করার আহ্বান

- Advertisements -

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোটার সাধারণ মানুষকে গোসল না করার আহ্বান জানানো হয়েছে। বৃষ্টির অভাবে জলাধারের পানি শুকিয়ে যাওয়ায় বোগোটার মেয়র কার্লোস ফার্নান্দো গালান এমন আহ্বান জানিয়েছেন। এছাড়া যুগল ও দম্পতিদের একসঙ্গে গোসল করতে অনুরোধ করেছেন তিনি।

কলম্বিয়ার রাজধানীতে পানি সরবরাহের অভাব থাকায় বোগোটায় দম্পতিদের একসাথে গোসল করতে বলা হয়েছে । এল নিনো নামে পরিচিত আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনার কারণে বাড়ছে অনাবৃষ্টি।   জলাধারগুলিতে বিপজ্জনকভাবে কমে যাচ্ছে পানির স্তর। পানির নিম্ন স্তরের কারণে বড় বড় এলাকাগুলিকে পানির গ্রিড থেকে বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে।

Advertisements

বোগোটার মেয়র কার্লোস ফার্নান্দো গ্যালান বলেছেন, একসঙ্গে গোসল করুন। এটি পানি সংরক্ষণের জন্য একটি শিক্ষামূলক অনুশীলন, অন্য কিছু নয়। এই ধরনের জিনিস আমাদের পানি সংরক্ষণে অনেক সাহায্য করতে পারে।  এই আচরণগত পরিবর্তনগুলি গুরুত্বপূর্ণ।

গ্যালান বাসিন্দাদের তাদের দৈনন্দিন স্বাস্থ্যবিধি অনুশীলনগুলি সম্পূর্ণরূপে পরিত্যাগ করার কথা বিবেচনা করতে বলেছিলেন কারণ জলাধারগুলিতে পানির স্তর আশংকাজনকভাবে কমে গেছে। মেয়র বলেন, আপনি যদি রবিবার বা সপ্তাহের অন্য কোনও দিন আপনার বাড়ি থেকে বের না হন তবে গোসল করবেন না।

এল নিনো, যা সাধারণত দক্ষিণ আমেরিকায় কম বৃষ্টিপাতের কারণ, এই বছর রেকর্ড-ব্রেকিং খরা এবং তাপমাত্রার জন্য দায়ী, যা সমগ্র অঞ্চল জুড়ে প্রশাসনকে জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য করেছে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৬০০ মিটার উপরে আন্দিজ পর্বতমালায় অবস্থিত বোগোটায় পানির অভাব দিনে দিনে বাড়ছে।

Advertisements

সাধারণত রাজধানীতে প্রতি বছর গড়ে ১০২০ মিমি বৃষ্টিপাত হয়- লন্ডনের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ। এখনও অস্বাভাবিকভাবে দীর্ঘ গরম ​​এবং শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে রাজধানীর আশেপাশের বনাঞ্চলে দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে।ধোঁয়ার জেরে দমবন্ধকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এখন যে জলাধারগুলির উপর প্রায় ১০ মিলিয়ন মানুষ নির্ভর করে সেগুলি “সঙ্কটজনক” স্তরে রয়েছে। চিংগাজা জলাধার যা রাজধানীর ৭০% জল সরবরাহ করে, সেটি নেমে গেছে ১৬% ।

বোগোটার পাবলিক ওয়াটার ইউটিলিটি অনুমান করছে যে, সেখানে ৫৪ দিনের পানি অবশিষ্ট থাকতে পারে। বিপর্যয় রোধ করার জন্য, স্থানীয় কর্মকর্তারা বোগোটাকে নয়টি জোনে বিভক্ত করেছেন, যার প্রতিটিকে ২৪ ঘন্টা সময়ের মধ্যে কয়েক ঘন্টার জন্য ওয়াটার গ্রিড থেকে বিচ্ছিন্ন করা হবে। এই ব্যবস্থা কতক্ষণ স্থায়ী হবে তা বলেননি মেয়র তবে শহরের মানুষকে পানির ব্যবহার কমাতে বলেছিলেন যাতে তা  তাড়াতাড়ি শেষ না হয়ে যায়। মানুষকে এক ফোঁটা পানিও নষ্ট না করার অনুরোধ  করেছেন মেয়র।

বোগোটা লাতিন আমেরিকার একমাত্র প্রধান শহর নয় যা খরা মোকাবেলায় পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে। মেক্সিকো সিটিও গত মাসে পানি সরবরাহের ওপর রাশ টেনেছে  এবং গুয়াতেমালা বুধবার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে কারণ এটি দাবানল নিয়ন্ত্রণে লড়াই করছে। রাজধানীর বাসিন্দা ৩৪ বছর বয়সী মারিয়ানা গার্সিয়া আচুরি বলছেন, খুব কম লোকই সম্ভবত গোসল বন্ধ করার জন্য গ্যালানের পরামর্শ গ্রহণ করবে কারণ কলম্বিয়ানরা স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে অত্যন্ত সচেতন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন