English

32 C
Dhaka
সোমবার, মে ২৩, ২০২২
- Advertisement -

নন্দীগ্রাম থেকে নির্বাচনে লড়তে চান মমতা

- Advertisements -

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আসন্ন বিধানসভার নির্বাচনে নন্দীগ্রাম আসন থেকে লড়াই করার ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান মমতা ব্যানার্জি। বর্তমানে দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুর কেন্দ্রের বিধায়ক হলেন মমতা। অন্যদিকে ২০১৬ সালে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম আসনে জিতেছিলেন রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু গত মাসেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন শুভেন্দু।

Advertisements

২০১১ সালে শুভেন্দুকে সাথী করেই নন্দীগ্রামে জমি আন্দোলন গড়ে তুলেছেন মমতা। আর তার ওপর ভিত্তি করেই ৩৪ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটেছিল। ক্ষমতায় আসে তৃণমূল কংগ্রেস।

কিন্তু সোমবার সেই নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়েই শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে নন্দীগ্রাম কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন মমতা। তিনি বলেন ‘এই নন্দীগ্রামে আমি আমি বার বার আসবো। নন্দীগ্রাম আমার একটা লাকি জায়গা। কারণ ২০১৬ সালের নির্বাচনের আগে এখান থেকেই আমি আমার নির্বাচন প্রচারণা শুরু করেছিলাম। ২০২১ এর নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকে জয়ের পালা শুরু হবে এবং নন্দীগ্রাম থেকে রাজ্যের প্রতিটি আসনে জয়লাভ করবে।’
তিনি বলেন ‘যে ব্যক্তি আপনাদের কাছে পড়ে থেকে কাজ করবেন, এমন একজন ভাল মানুষকে নন্দীগ্রাম আসনে প্রার্থী করা হবে।’
এরপরই তিনি ঘোষণা দেন ‘এই আসনটি সাধারণ আসন। এমনকি আমিই যদি এখানে দাঁড়াই তবে কেমন হয়? (এরপরই হাত তালির বন্যা বয়ে যায়)।

আমি ভাবছিলাম… এটা কথার কথা, তাই একটু বললাম। একটু ইচ্ছা হল। এটা আমার মনের জায়গা। এটা ভালবাসার জায়গা। আমি হয়তো ভোটের সময়ে বেশি সময় দিতে পরবো না। কারণ ২৯৪ টি আসনই আমাকে লড়তে হবে। কিন্তু আপনারা সেই কাজটা করে নেবেন। তার পরে যা কাজ আমি সব করে দেবো। ঠিক আছে। এমন দল কি কোথাও দেখেছেন? যে ভালোবাসার টানে..নিজের আবেগকে ধরে রাখতে পরেলাম না।’

Advertisements

তবে মমতার এই ঘোষণার পরই মমতাকে কটাক্ষ করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়। তিনি বলেন, ‘মমতা ব্যানার্জি বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে নির্বাচনে প্রার্থী হন না কেন আমাদের তাতে কিছু যায় আসে না। এটা তার নিজের ব্যক্তিগত ব্যাপার। বিজেপির সাধারণ কর্মীরাই মমতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রস্তুত আছে। আসলে তার মনে হয়েছে এক জায়গা দাঁড়ালে হেরে যেতে পারেন তাই আরেকটা জায়গা খুঁজছেন।’

অন্যদিকে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বলেন ‘নন্দীগ্রামে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করার অর্থ হল তার পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গেছে। নন্দীগ্রামে দাঁড়ালে তিনি অনেক ভোটের ব্যবধানে হারবেন। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে যেভাবে নির্বাচনে হেরে মুখ্যমন্ত্রিত্ব হারাতে হয়েছিল, মমতারও সেই অবস্থা হবে।’

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন