English

29 C
Dhaka
বুধবার, জুন ২৬, ২০২৪
- Advertisement -

কেন আমাদের জিংক প্রয়োজন?

- Advertisements -

জিংক একটি গুরুত্বপূর্ণ খনিজ যা আমাদের কোষগুলোকে ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং ডিএনএ নামক জেনেটিক উপাদান তৈরি করতে সাহায্য করে। খনিজটি ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে, ঘ্রাণ ও স্বাদের অনুভূতিতে সহায়তা করে এবং শিশুর বিকাশে অপরিহার্য ভূমিকা পালন করে।

Advertisements

প্রতিদিন কী পরিমাণ জিংক প্রয়োজন? 
একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের প্রতিদিন ১১ মিলিগ্রাম এবং একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী ৮ মিলিগ্রাম জিংক প্রয়োজন। গর্ভবতী ব বুকের দুধ খাওয়ান এমন মায়ের প্রয়োজন ১২ মিলিগ্রাম। শিশুদের বয়স এবং লিঙ্গের উপর নির্ভর করে ২ থেকে ১১ মিলিগ্রাম পর্যন্ত জিংক প্রয়োজন প্রতিদিন। আপনার শিশুর জন্য কতটা সঠিক সে সম্পর্কে আপনার শিশু বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন।

Advertisements

জিংকের ঘাটতি হলে কী হয়?

  • শিশুদের সঠিক বিকাশ ব্যাহত হতে পারে এবং কিশোর বয়সে বয়ঃসন্ধি বিলম্বিত করতে পারে।
  • চুল পড়তে পারে অতিরিক্ত পরিমাণে।
  • ডায়রিয়া হতে পারে জিংক কমে যাওয়ার লক্ষণ।
  • ঘা বা খত নিরাময়ে বিলম্ব হতে পারে।
  • ক্ষুধা কমে যাওয়ার জিংকের ঘাটতির লক্ষণ।
  • নখ ভঙ্গুর হয়ে যেতে পারে।
  • স্বাদ ও ঘ্রাণের অনুভূতি কমে যেতে পারে।

কোন কোন খাবারে মিলবে জিংক?

  1. কাজুবাদাম জিংকের দারুণ উৎস। ১ আউন্স কাজুতে ১.৬ মিলিগ্রাম জিংক থাকে।
  2. চিংড়ি থেকে প্রচুর পরিমাণ জিংক পাওয়া যায়। এছাড়া ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড আছে এমন সব খাবারেও মেলে জিংক।
  3. আধা বাটি ওটমিল থেকে পাবেন ১.৩ মিলিগ্রাম জিংক। কোলেস্টেরলের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি শরীরের জন্য উপকারী ব্যাকটেরিয়া বাড়াতে সাহায্য করে ওট।
  4. জিংকের ঘাটতি দূর করার জন্য মুরগির মাংস খেতে পারেন।  ৮৫ গ্রাম মুরগির মাংস থেকে ২.৪ মিলিগ্রাম জিংক পাওয়া যায়।
  5. ডার্ক চকলেট থেকে জিংক মেলে। ১০০ গ্রাম ডার্ক চকলেটে রয়েছে ৩.৩ মিলিগ্রাম জিংক।
সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন