English

32 C
Dhaka
বুধবার, জুলাই ১৭, ২০২৪
- Advertisement -

মাউস ধরলেও যন্ত্রণা, অসহ্য ব্যথা সারবে কিভাবে?

- Advertisements -

কম্পিউটারের মাউস ধরে কাজ শুরু করলেই মনে হয় যেন ঝনঝন করে উঠছে কব্জি থেকে কনুই। ভারী কিছু তুলতে গেলেই প্রচণ্ড যন্ত্রণা। রুটি বেলতে গেলে, কাপড় নিঙড়ানোর সময়ে টনটন করে ওঠে কনুই।

পুরুষ হোক বা নারী- কনুইয়ের এমন ব্যথায় কাতর অনেকেই। কী থেকে ব্যথা হচ্ছে তা বুঝতে পারেন না বেশিভাগই। কেউ ভাবেন বাতে ধরেছে, আবার কেউ মনে করেন, একদিক চেপে শোওয়ার কারণে ব্যথা হচ্ছে। আসলে কারণটা অন্য। দীর্ঘ দিন ধরে যদি কনুইয়ে ব্যথা হতেই থাকে, তা হলে চিকিৎসকরা পরীক্ষা করাতে বলেন। এ ব্যথার কারণ হতে পারে- ‘টেনিস এলবো’।

টেনিস এলবো কাদের হতে পারে?

Advertisements

টেনিস বা ক্রিকেট খেলোয়াড়দের এমন ব্যথা হয় সেটা শুনে থাকবেন। তবে টেনিস এলবোর ব্যথা হতে পারে যেকোনো মানুষেরই। যারা খুব ভারী কাজ করেন, হাতে করে ভারী জিনিস তুলতে হয় বা কম্পিউটারে একটানা, একই ভঙ্গিতে মাউস ধরে কাজ করতে হয, তাদের এমন ব্যথা হতেই পারে।

চিকিৎসার পরিভাষায় এই ধরনের ব্যথাকে বলা হয় ‘ল্যাটেরাল এপিকন্ডিলাইটিস’। এ রোগে সাধারণত কনুইয়ের হাড়ের বাইরের দিকে ব্যথা হয়। সেই ব্যথা হাতের কব্জি পর্যন্তও পৌঁছতে পারে। চিকিৎসকেরা বলছেন, কনুইয়ের পুরনো চোট থেকেও টেনিস এলবো হতে পারে। কখনো কখনো বাত বা আর্থ্রাইটিসের সূত্রপাত হয় এর থেকে।

তীব্র গরমে অসুস্থ হচ্ছে খুদেরা, ঘরে ঘরে সর্দিকাশি, জ্বর, বাবা-মায়েরা কিভাবে সতর্ক হবেন?
যদি দেখা যায়, হাতের পেশি ফুলে উঠেছে, শিরায় শিরায় টান ধরছে, কাজ করতে গেলেই অসহ্য ব্যথা হচ্ছে, তা হলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। ডায়াবেটিস ও থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। কনুইয়ে টিউমার হলে বা কোনো রকম সংক্রমণ হলেও ব্যথা হতে পারে।

সারবে কিভাবে?

Advertisements

আগে বুঝতে হবে রোগের কারণ কী? ওই কারণ ধরে রোগের চিকিৎসা শুরু করতে লাগে। যদি দেখা যায়, কোনো একরকম কাজ করলেই ব্যথা বাড়ছে, তা হলে ওই কাজ বন্ধ করতে হবে। চিকিৎসকেরা বলছেন, টেনিস এলবো ধরা পড়লে, মোটরবাইক চালানো, মাউস ধরে দীর্ঘ সময় কাজ করা অনুচিত। ভারী কিছু তুলতেও তখন নিষেধ করা হয়।

ওষুধ ও ফিজিয়োথেরাপি দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। এ ছাড়া, স্টেরয়েড ইনজেকশনও দেন চিকিৎসকেরা। হাতে ‘কমপ্রেশন ব্যান্ড’ ব্যবহার করতে বলা হয়। যখন ওষুধ, ফিজিয়োথেরাপি কোনও কিছুতেই কাজ হবে না, তখন সার্জারির শরণাপন্ন হতে হবে। তবে নিজে থেকে তো আর সার্জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না, চিকিৎসকের পরামর্শ লাগে।

সার্ভাইকাল স্পন্ডিলাইটিস থেকেও এ ধরনের ব্যথা দেখা দিতে পারে। কী কারণে ব্যথা হচ্ছে, সেটা রোগী নিজে বুঝতে পারেন না। তাই শুরু থেকেই চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া দরকার।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন