English

30 C
Dhaka
সোমবার, মে ২৩, ২০২২
- Advertisement -

রাজধানীর শব্দদূষণ-বায়ুদূষণ-যানজট নিয়ে সংসদে ক্ষোভ

- Advertisements -

সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান রাজধানীতে শব্দদূষণ, বায়ুদূষণ ও যানজট নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ রাজউকের নকশা অনুমোদনে জটিলতা ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির লুৎফুন্নেসা খান নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে আলোচনার সুযোগ নিয়ে পীর ফজলুর রহমান বলেন, প্রতিদিন মানুষকে যানজটের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। এতে একদিকে অর্থনৈতিক ক্ষতি হচ্ছে, অন্যদিকে মানুষের কর্মক্ষমতা কমে যাচ্ছে।

Advertisements

এভাবে চলতে থাকলে ঢাকা শহর অকার্যকর শহরে পরিণত হবে।

তিনি বলেন, উন্নয়ন কাজে কোনো সমন্বয় নেই। এক সংস্থা রাস্তা তৈরি করে আবার কিছুদিনের মধ্যে অন্য সংস্থা রাস্তা কাটে। কোন বাস কোথায় থামবে, তার কোনো ঠিক নেই। রাস্তা বন্ধ করে রেখে তারা যাত্রী তোলে।

পীর ফজলুর রহমান বলেন, গ্রামের মানুষ যিনি গ্রামে থাকেন, তার খুব একটা সমস্যা হয় না। ঢাকা এখন শব্দদূষণে এক নম্বরে, বায়ুদূষণেও এগিয়ে। ঢাকায় যারা বসবাস করেন, যানজটের কারণে তারা সকালে বের হলেও দুপুরে কাঙ্ক্ষিত জায়গায় পৌঁছতে পারবেন কি না, এর নিশ্চয়তা নেই। বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যানজটের কারণে বছরে ৮৭ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হচ্ছে। যানজট নিরসনে পদক্ষেপ নেওয়া এবং প্রশাসনিক বিকেন্দ্রীকরণের দাবি জানান তিনি।

Advertisements

এর আগে পয়েন্ট অব অর্ডারে আলোচনার সূত্রপাত করে কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, ওয়ারী স্কুলটি বন্ধ হয়ে গেছে। এটি নির্মাণাধীন ছিল। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) বলছে, বঙ্গভবনের অনুমোদন ছাড়া নকশা পাস করা যাবে না। অথচ এর অবস্থান বঙ্গভবন থেকে এক হাজার গজ দূরে। আশপাশের সকল ভবন ১২ তলা।

তিনি আরো বলেন, কাউকে খুশি করা বা রাজউক থেকে প্ল্যান পাস করানোর মতো টাকা স্কুলের নেই। রাজউকের কাছে গেলে এত ঘাট দেখায়, এগুলো পেরিয়ে প্ল্যান আনা সম্ভব নয়। এখন আল্লাহর কাছে ফাইল পাঠাতে হবে, কিন্তু এটা তো সম্ভব না। তাই প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

একই আলোচনায় অংশ নিয়ে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা খুবই জরুরি বলে উল্লেখ করেন এমপি লুৎফুন নেসা খান। তিনি জেলা পর্যায়ে প্রয়োজনীয় লোকবল ও যন্ত্রপাতির ব্যবস্থা করার দাবি জানান। আসন্ন পবিত্র রমজানে যাতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি করা না হয় এবং খাদ্যে রাসায়নিক ব্যবহার করা না হয় সেদিকে নজর দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন