English

26 C
Dhaka
শুক্রবার, মার্চ ১, ২০২৪
- Advertisement -

এবারও ঈদ যাত্রায় মানুষ ভয়ংকর দুর্ভোগে পড়েছে: রিজভী

- Advertisements -

নিত্যপণ্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি, ঈদ যাত্রায় ঘরমুখো মানুষ ভয়ংকর দুর্ভোগে, খুশির ঈদেও জনমনে স্বস্তি নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ সোমবার সকালে শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

Advertisements

রিজভী বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে মানুষ স্বস্তিতে ঈদ করতে পারছে না। ইচ্ছা থাকার পরেও পরিবার-পরিজনের জন্য উপহার কিনতে পারছে না।

বিশেষ করে স্বল্প আয়ের মানুষরা ঈদে বিপাকে পড়েছে বেশি। অন্যদিকে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী কিনতেও মানুষ হিমশিম খাচ্ছে। পাশাপাশি পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে গিয়েও পদে পদে হয়রানির শিকার হচ্ছে। একদিকে টিকিট কালোবাজারি, অন্যদিকে যাত্রাপথেও সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়ছে মানুষ। সব মিলিয়ে এবার ঈদে মোটেও স্বস্তিতে নেই মানুষ।

তিনি আরো বলেন, এ দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠী মুসলমান। তাদের সর্ববৃহৎ এবং প্রধান উৎসব ঈদুল ফিতর। এই ঈদুল ফিতরে মানুষ কর্মস্থল থেকে ছুটি পাওয়ার পর নিজের মাতৃভূমিতে, নিজের এলাকায় একটা আকাঙ্ক্ষা এবং আবেগ নিয়ে ছুটে যায়। এবারও আপনারা দেখেছেন ভয়ংকর দুর্ভোগের মুখোমুখি পড়েছে ঘরমুখো মানুষ।

Advertisements

ঈদযাত্রা নিয়ে নানা অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, এবার পিকআপে করে, বাসের ছাদে চড়ে মানুষ যেভাবে গেছে, কোনো আদমসন্তান এভাবে যেতে পারে না। কিন্তু এ ব্যাপারে সরকার ভ্রুক্ষেপ করে না। বাসের টিকিট কালোবাজারে বিক্রি হয়েছে। রেলের টিকিট কাউন্টারে নেই, কিন্তু কালোবাজারে বিক্রি হয়েছে। লঞ্চেরও একই অবস্থা। পানিপথ, রেলপথ, সড়কপথ প্রতিটি জায়গায় অরাজকতা হয়েছে। জবাবদিহিতামূলক কোনো সরকার না থাকার কারণে এ ধরনের অরাজকতা, অবিচার, অনাচার ও সর্বনাশা কর্মকাণ্ডই ঘটে।

তিনি আরো বলেন, এমনিতেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দামের যে অভিঘাত, সেই অভিঘাতে ক্ষতবিক্ষত এই দেশের সাধারণ মানুষ। তার ওপর ঈদের কেনাকাটা। মানুষ সাধারণত তাদের সন্তানদের ঈদে ভালো কাপড় দেয়। সেই কাপড় কেনার সামর্থ্য তাদের ছিল না। বিশেষ করে মধ্যম আয়ের মানুষ, নিম্নআয়ের মানুষরা এবার ঈদের কেনাকাটা করতে পারেনি।

জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের সভাপতি আনোয়ার হোসেইন, শ্রম বিষয়ক সহ-সম্পাদক হুমায়ুন কবির খান, শ্রমিক দলের আবুল খায়ের খাজা, মুস্তাফিজুল করীম মজুমদার, মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জুসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে রিজভী শেরেবাংলানগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন