English

26 C
Dhaka
সোমবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২২
- Advertisement -

গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়ে গেছে: মির্জা ফখরুল

- Advertisements -

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়ে গেছে, নতুন করে আন্দোলনের ডাক দেওয়ার প্রয়োজন নেই। দলীয় সকল কর্মকান্ডে এখন থেকে আর কোনো নির্দেশের অপেক্ষায় না থেকে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ুন। দেশে আর লুটপাট ও দুর্নীতি চলবে না, জনগণ জেগে উঠতে শুরু করেছে, দয়া করে বিদায় হও। অবিলম্বে পদত্যাগ করে ও সংসদ বিলুপ্ত করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরিয়ে দাও।

Advertisements

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এ দেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না। কারণ এ দেশের মানুষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলোতেই স্বাধীনভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পেরেছিলেন। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলোতে দেখা গেছে তাদের গুন্ডাবাহিনী অথবা পুলিশ বাহিনী দিয়ে জনগণকে ভোট দিতে বাধা দিয়েছে অথবা আগের রাতেই ভোট দিয়ে জনগণের সাথে প্রহসন করেছে। আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা বুঝতে পেরেছে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তারা আর ক্ষমতায় আসতে পারবেন না, তাই তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে তাদের এত ভয়। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ৩০টির বেশি আসন পাবে না।

আমরা এ দেশটি কারো দয়ায় পাইনি। মুক্তিযুদ্ধ করে এ দেশটা আমরা স্বাধীন করেছি এ আওয়ামী লুটেরা বাহিনীর দ্বারা দেশটা লুটপাটের জন্য নয়। আজ সারা বিশ্বের মানুষ জানে বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে, এখানে কোনো গণতন্ত্র নেই। এ দেশের মানুষের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা, জ্বালানি তেল, বিদ্যুৎ, চাল, ডাল, সারসহ যাবতীয় নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি আন্দোলন শুরু করণে ইতোমধ্যে যুবদল ও ছাত্রদলের তিনজন কর্মীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমান অবৈধ সরকার আমাদের আন্দোলন থামাতে পারেনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ্ এর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে শুক্রবার বিকেলে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার ঘাগটিয়া চালা ময়দানে অনুষ্ঠিত মিলাদ মাহফিল, স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

Advertisements

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আ. স. ম হান্নান শাহ ছিলেন একজন নির্ভিক সাহসী সৈনিক। তিনি দল ও দেশের সংকটময় মুহূর্তে সত্যিকার দেশ প্রেমিক নেতার ভূমিকা পালন করেছেন। বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের শাসনকালকে এক ভয়াবহ দুঃসময় ও কারারুদ্ধ অবস্থা উল্লেখ করে তিনি হান্নান শাহর গভীর অভাব অনুভব করার কথা ব্যক্ত করেন।

গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে ও কাপসিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার আজিজুর রহমান পেরার সঞ্চালনায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বেনজীর আহমেদ টিটু, বিএনপির সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, শ্রম বিষয়ক সহ সম্পাদক হুমায়ুন কবির খান, স্বাস্থ্য বিষয়ক সহ-সম্পাদক ডা: রফিকুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য ওমর ফারুক শাফিন, হান্নান শাহর ছেলে গাজীপুর জেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শাহ্ রিয়াজুল হান্নান প্রমুখ। আলোচনা ও মিলাদ মাহফিলের পূর্বে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা হান্নান শাহর কবরে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন