English

28 C
Dhaka
রবিবার, আগস্ট ১৪, ২০২২
- Advertisement -

গোবিন্দগঞ্জে ইপিজেড স্থাপনের সিদ্ধান্তে আনন্দ মিছিল

- Advertisements -

দেশের ১০তম রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা (ইপিজেড) গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে স্থাপনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ বাণিজ্যিক খামারের জমিতে স্থাপিত হবে রংপুর রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা (আরইপিজেড)। উপজেলায় ইপিজেড স্থাপনের সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বর্ণাঢ্য আনন্দ মিছিল ও রোড শো অনুষ্ঠিত হয়েছে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা বাসী ও সাংবাদিক বৃন্দের আয়োজনে শনিবার বেলা ১১টায় পৌর শহরে এই আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ মিছিল উদ্বোধণ করেন পৌর মেয়র মুকিতুর রহমান রাফি। শেষে সুসজ্জিত ট্রাকে শিল্পীদের গান পরিবেশনা নিয়ে উপজেলা ব্যাপী রোড শো অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ মিছিলে উপজেলার হাজার হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

র‌্যালি আনন্দ মিছিলে সংহতি প্রকাশ করে মোবাইল ফোনে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদ সদস্য প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান।

Advertisements

আনন্দ মিছিলের সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামলেন্দু মোহন রায় জীবু বাবুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক খোকন আহম্মেদ, রাসেল কবির, রফিকুল ইসলাম রফিক, মোয়াজ্জেম হোসেন আকন্দ, আনোয়ারুল ইসলাম, উজ্জ¦ল হক প্রধান, মোস্তফা কামাল সুমন প্রমুখ। বক্তারা, গোবিন্দগঞ্জে ইপিজেড স্থাপনের সিন্ধান্ত নেওয়ায় বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে ধন্যবাদ জানান। উপজেলা সহ জেলার আর্থসামাজিক উন্নয়নের বিপ্লবীয় কার্যক্রমের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ আগস্ট বেজপার নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল নজরুল ইসলাম আরইপিজেডের জন্য নির্ধারিত জায়গা পরিদর্শন করেন। গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় আরইপিজেড স্থাপনের সিন্ধান্ত জানিয়ে জেলা প্রশাসক সহ জেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন।

প্রসঙ্গত, ইপিজেড স্থাপন করা হলে এ উপজেলায় অর্থনৈতিকভাবে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হবে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে ব্যহত করতে ও নিজ উদ্দেশ্য হাসিল করতে কতিপয় সাঁওতাল ও বাঙ্গালী মিলে এর তীব্র বিরোধীতা করছে।

Advertisements

সাঁওতালদের সংগ্রাম ইতিহাস অনেক পুরোনো ও গর্বের। কিন্তু আজ তারা যা করছে, তা কোনভাবে গ্রহণযোগ্য নয়। সাহেবগঞ্জ বাগদা ফার্মে আখ খামার গড়ে তুলতে ১৮৪২ একর এ জমি অধিগ্রহন করা হয় ৫০ এর দশকে।যে উদ্দেশ্যে চিনিকল কর্তৃপক্ষ এ জমি অধিগ্রহন করেছিলো তাতে ব্যর্থ হয়েছে কর্তৃপক্ষ। চুক্তি ছিলো আখ চাষে ব্যবহার না হলে এ জমি সরকারের কাছে ফেরত দিতে হবে কিন্তু ২০০৪ সালে চিনিকল বন্ধ হলেও কর্তৃপক্ষ জমি সরকারকে না দিয়ে ইজারা দেয়। যেখানে আখের সাথে চাষ হয়েছে ধান, পাট, তামাকসহ নানা ফসল। ফলে পুর্ব পুরুষের জমি ফেরত পেতে মরিয়া হয়ে ওঠে সাওতাল জনগোষ্ঠী। ২০১৬ সালে একত্রিত হয়ে গড়ে তোলেন ভূমি উদ্ধার কমিটি। দখল নেন পুরো বাগদা ফার্ম এলাকা। জমি উদ্ধারে ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর শুরু হয় প্রশাসনের অভিযান। একদিনে বিতারিত করা হয় সবাইকে আগুনে পুড়ে নিশ্চিহ্ন করা হয় শত শত বাড়ি ঘর।

এ ঘটনায় প্রান হারায় ৩ সাওতাল, আহত হয় অনেক পুলিশ সদস্যও। শুরু হয় সরকারের বিরুদ্ধে আইনি লড়াই।কিন্তু সরকারের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে দ্রুত সমাধান হবে কি না সে সংশই নিয়েই কেটে যায় ৫ বছর, গোবিন্দগঞ্জবাসী শুনতে পায় ইপিজেড স্থাপনে নীতিগত সিদ্ধান্তের কথা, শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা। অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গত ২৪ আগস্ট গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকল এলাকায় প্রস্তাবিত ইপিজেড স্থাপনের লক্ষেজেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথি বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল নজরুল ইসলাম ইপিজেড নির্মাণে সম্ভব্য স্থান হিসেবে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকা পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, প্রধাণমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই এলাকায় বসবাসকারী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষদের পূণর্বাসন ও কর্মসংস্থানের বিষয়টি সর্বাগ্রে বিবেচনা করবেন। এ ছাড়া ইপিজেড স্থাপনের ফলে এই অঞ্চলের মানুষের শিক্ষা, রাস্তা ঘাটসহ যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন ঘটবে।

অনেক পুরোনো সংগ্রাম ইতিহাস ও গর্বের অংশিদার সাঁওতালদের পূণর্বাসন ও কর্মসংস্থানের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ইপিজেড স্থাপন হলে বদলে যাবে গোবিন্দগঞ্জের চিত্র, বর্তমানে দেশ কৃষিখাতের পাশাপাশি শিল্পখাতেও এগিয়ে যাবে। কৃষিকাজ আমাদের অতীত ও বর্তমান হলেও শিল্পক্ষেত্রেই আমাদের ভবিষ্যৎ নিহিত। কৃষিক্ষেত্রের পাশাপাশি শিল্পক্ষেত্রেও দেশ বিকশিত হয়ে বঙ্গবন্ধুর পরিপূর্ণ সোনার বাংলায় পরিনত হবে। এমনটাই প্রত্যাশা গোবিন্দগঞ্জ উপজেলাবাসীর।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন