English

29 C
Dhaka
বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২
- Advertisement -

বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা পরিকল্পনা ২০২১-২০৩০ আনুষ্ঠানিক সূচনা

- Advertisements -
Advertisements
Advertisements

সড়ক নিরাপত্তায় গৃহিত জাতিসংঘের দ্বিতীয় ডিকেড অব একশনের বিশ্ব পরিকল্পনার মূল লক্ষ্য হচ্ছে,২০২১-২০৩০ এই দশ বছরে বিশ্বব্যাপী সড়ক দুর্ঘটনা ও হতাহত অন্তত ৫০ শতাংশ কমিয়ে আনতে হবে।যেমন চলছে তেমন আর চলতে দেয়া হবে না। ২৮ অক্টোবর ২০২১, জাতিসংঘ পরিকল্পনাটি বিশ্বব্যাপী আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেছে।জাতিসংঘ বলছে-দৃঢ় প্রতিশ্রুতি ছাড়া এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সম্ভব না।
বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা পরিকল্পনা ২০২১-২০৩০ জাতিসংঘের পক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ সরকারের হাতে তুলে দেয়ার দায়িত্ব ছিল বিশ্বনন্দিত এনজিও ব্রাক এর ওপর। এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর বিকেল ৪টায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)এর সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব আব্দুল মালেক।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)এর চেয়ারম্যান জনাব নূর মোহাম্মদ মজুমদার।অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ব্রাক রোড সেফটি প্রোগ্রাম এর পরিচালক আহমেদ নাজমুল হোসাইন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব আব্দুল মালেক বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে পরিকল্পনাটি গ্রহণ করলাম।ভালভাবে এটি পর্যালোচনা করে কোন কোন জায়গায় আমাদের দুর্বলতা আছে তা বের করে সেসব জায়গায় গুরুত্ব দিয়ে কাজ শুরু করতে হবে।তিনি বলেন ২০১৮ পর্যন্ত দেশের সড়ক দুর্ঘটনা,হতাহতের পরিমান কম ছিল।তিনি আরো বলেন,দেশে স্থানীয় সরকারের রাস্তা বেশী তাই তাদেরকেও একাজে সম্পৃক্ত করতে হবে।সব পরিবর্তন সুফল দেয়না যদি তা যথাযথ ইমপ্লিমেন্ট না হয় বলেও তিনি মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, এখানে উপস্থিত সকল অংশীজন সরাসরি এখন থেকে এই কাজে যুক্ত হয়ে গেলেন।সরকারের কাজ সরকার করবেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিআরটিএ চেয়ারম্যান জনাব নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ২০২১-২০২৪ পর্যন্ত আমাদের একটি পরিকল্পনা জমা দেয়া আছে। অনুমোদন হলে কাজ শুরু করবো।তিনি বলেন, আমাদের অনেকে বিভিন্ন সভায় এসব বিষয়ে অনেক কথা বলে থাকেন কিন্তু মাঠ পর্যায়ে কাজের লোকের খুব অভাব।তিনি বলেন,সরকারের বরাদ্দের দিকে না তাকিয়ে অন্যান্য স্টেক হোল্ডারদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে।বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সিএসআর ফান্ড সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জনসচেতনতায় ব্যয় করতে আহবান জানান তিনি।
তিনি বলেন,জাতিসংঘের বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা পরিকল্পনা ২০২১-২০৩০ আনুষ্ঠানিকভাবে আজ হাতে পেলাম।গুরুত্ব দিয়ে দেখবো এবং বাস্তবায়নে সচেষ্ট হব। জাতিসংঘের বিশ্ব সড়ক নিরাপত্তা পরিকল্পনা ২০২১-২০৩০ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার কান্ট্রি প্রফেশনাল অফিসার সৈয়দ মাহফুজুল হক, নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, ঢাকা আহছানিয়া মিশন এর রোড সেফটি সমন্ব্য়ক শারমিন রহমান প্রমুখ।অনুষ্ঠানে বিআরটিএ, ব্রাকসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন