English

30 C
Dhaka
শনিবার, মে ২৮, ২০২২
- Advertisement -

সিলেটে এসএমএস এর অপেক্ষায় নগরের ৭২ হাজার বাসিন্দা

- Advertisements -

বৃহস্পতিবার থেকে সারা বাংলাদেশের ন্যায় সিলেট সিটিতেও বন্ধ হয়েছে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান টিকা কর্মসূচির মর্ডানার প্রথম ডোজের টিকা প্রয়োগ। একই সঙ্গে আজ থেকেই শুরু হয়েছে মর্ডানার দ্বিতীয় ডোজের টিকা প্রদান।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধী টিকার প্রথম ডোজের জন্য নিবন্ধনের পরও এসএমএস( ক্ষুদ্র বার্তা) না পেয়ে বিড়ম্বনায় পড়েছেন সিলেট নগরের প্রায় ৭২ হাজার নাগরিক।

অনেকেই নিবন্ধন হওয়ার পর সময় একমাস পার হয়ে গেলেও কোন এসএমএস না পাওয়ায় হতাশায় ভুগছেন। সংশ্লিষ্ট অনেকেই বলছেন টিকা সরবরাহ যদি নিশ্চিত না হয় তাহলে কেন বয়সসীমা কমানো হচ্ছে?

Advertisements

টিকা সংকটের কারণে কিছুদিন টিকাদানের ধীরগতি থাকলেও গত ৩০ জুন নিবন্ধন কার্যক্রম দ্বিতীয় দফা উন্মুক্ত করে সরকার। পরবর্তীতে দুই ধাপে কমানো হয় টিকা নিবন্ধনের বয়সসীমা। এদিকে মহামারী করোনার প্রকোপ বাড়তে থাকায় সুরক্ষা টিকা পেতে নিবন্ধন কারীর সংখ্যা ও বাড়তে শুরু করে। কিন্তু এসএমএস বিরম্বনায় বাড়ছে ভোগান্তি। দীর্ঘ হচ্ছে অপেক্ষমান টিকা গ্রহীতার তালিকা।

সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়,বর্তমানে সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রায় ৭২ হাজার লোক প্রথম ডোজ টিকার জন্য নিবন্ধন করে এসএমএসের অপেক্ষায় আছেন।

সিলেট নগরীর উপশহর এলাকার বাসিন্দা ওয়াহিদুজ্জামান পলাশ জানান,তিনি গত ২৩ জুলাই সস্ত্রীক টিকা দেওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেন,কিন্তু ২০ দিনে পার হওয়ার পরও তিনি এসএমএস পাননি। আজ থেকে মর্ডানার প্রথম ডোজ টিকা বন্ধ হওয়ায় তিনি হতাশা ব্যক্ত করেন।

নগরীর ৭ নং ওয়ার্ডের লন্ডনী রোডের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মোঃ সুফিয়ান আহমেদ জানান, তিনি গত ২৯ জুলাই সস্ত্রীক টিকার জন্য নিবন্ধন করেন,কিন্তু অদ্যাবধি কোন এসএমএস পাননি। এতদিনে টিকা না দিতে পেরে তিনিও হতাশা ব্যক্ত করেন।

Advertisements

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম নিরাপদ নিউজকে জানান, নগরীতে বর্তমানে ৭২ হাজারের বেশি নিবন্ধন রয়েছে। এছাড়া প্রতিদিনই নতুন করে নিবন্ধন হচ্ছে। এ কারণে টিকা দেওয়ার তারিখ জানিয়ে এসএমএস পাঠাতে দেরি হচ্ছে। আমরা যে হারে টিকা দিচ্ছি তার চেয়ে অনেক বেশি গতিতে নিবন্ধন হচ্ছে। ফলে টিকা প্রত্যাশীদের সারি দীর্ঘ হচ্ছে।

ডা. জাহিদুল ইসলাম আরো জানান, টিকা নিবন্ধনের বয়স কমিয়ে আনার পর থেকেই ব্যাপকহারে টিকার নিবন্ধন হচ্ছে। তাই নিবন্ধনের তালিকা অনেক লম্বা হয়ে আসছে। আমাদের দৈনিক ৬০০ জনকে এসএমএস দেওয়া সক্ষমতা থাকলেও নিবন্ধন হচ্ছে অনেক বেশি এ কারণে দ্রুত এসএমএস দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এসময় তিনি নিবন্ধিতদের উদ্বিগ্ন না হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, যারা নিবন্ধন করেছেন তারা সবাই টিকা পাবেন সকলের এসএমএস আসবে।এতে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন