English

30 C
Dhaka
শনিবার, অক্টোবর ১, ২০২২
- Advertisement -

৪১ বছর বয়সে এসে থামার ঘোষণা দিলেন ফেদেরার

- Advertisements -

টেনিস জগতে ইন্দ্রপতন চলছেই। মাত্র এক সপ্তাহ আগে র‌্যাকেট তুলে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন টেনিস তারকা সেরেনা উইলিয়ামস। তার ওই ঘোষণার মধ্য দিয়ে টেনিসের একটি অধ্যায়েরই যেন অবসান ঘটে গেলো।

Advertisements

এবার তার পথে হাঁটতে চলেছেন, টেনিসের আরেক জীবন্ত কিংবদন্তি রজার ফেদেরার। সারা বিশ্বের মানুষ শুধু ফেদেরারকেই নয়, তার কল্যাণে টেনিসকেও ভালোবেসেছে। সময় আর স্রোত তো কারো জন্য থেমে থাকে না। দেখতে দেখতে এই সুইস তারকারও পার করে ফেলেছেন ৪১টি বসন্ত।

অবশেষে তার থামার সময় হয়ে গেছে এবং র‌্যাকেট তোলার ঘোষণাও দিয়ে দিলেন তিনি। আগামী সপ্তাহেই লন্ডনে শুরু হবে লেভার কাপ। এটাই হবে তার ক্যারিয়ারে সর্বশেষ প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্ট। এরপর আর কোনো এটিপি ট্যুর কিংবা গ্র্যান্ড স্লামে লড়াই করতে দেখা যাবে না বিশ্বের তুমুল জনপ্রিয় এই ক্রীড়াবীদকে।

এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে দেয়া বক্তেব্যে ২০টি গ্র্যান্ডস্লামের মালিক ফেদেরার বলেন, ‘এখন আমার ৪১ বছর বয়স। গত ২৪ বছরে দেড় হাজারেরও বেশি ম্যাচ খেলেছি। আমি যা ভেবেছিলাম, টেনিস আমাকে তার থেকেও বেশি দিয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক টেনিসে আমার সময় যে শেষ, সেটা এবার বুঝতে পেরেছি।’

Advertisements

গত বছর উইম্বলডনের পর চোটের জন্য খেলেননি ফেদেরার। এ কারণে তার কোর্টে ফেরা নিয়ে চলছিল জল্পনা। এরমধ্যেই অবসর ঘোষণা করলেন সুইস তারকা।

অবসর ঘোষণা করতে গিয়ে ফেদেরার বলেন, ‘গত তিন বছরে অনেক বাধার সম্মুখিন হয়েছি। বারবার চোট এবং অস্ত্রোপচার হয়েছে। খেলায় ফেরার জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছি। কিন্তু নিজের শারীরিক সক্ষমতা কতটা এবং কত দূর পর্যন্ত টানতে পারব, সেটাও জানি। গত কয়েক দিনে নিজের ভবিষ্যৎ পরিষ্কার বুঝতে পেরেছি।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘পরের সপ্তাহে লন্ডনে লেভার কাপই আমার শেষ এটিপি প্রতিযোগিতা হতে চলেছে। ভবিষ্যতে আরও অনেক টেনিস খেলব ঠিকই; কিন্তু গ্র্যান্ড স্ল্যাম বা ট্যুরে আমাকে আর দেখা যাবে না। এই সিদ্ধান্ত নেওয়া খুবই কঠিন ছিল। কারণ, টেনিস থেকে অনেক কিছু পেয়েছি। তবে, একই সঙ্গে আমার কাছে উচ্ছ্বাস করার মতো অনেক কিছু রয়েছে। আমি নিজেকে এই বিশ্বের সব থেকে ভাগ্যবান মানুষ বলে মনে করি। যে পর্যায়ের টেনিস খেলেছি এবং যে সময় ধরে খেলেছি, তা কোনও দিন ভাবতে পারিনি।’

ফেডেরার টেনিস-জীবনে ছয় বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, একবার ফ্রেঞ্চ ওপেন, আটবার উইম্বলডন এবং পাঁচবার ইউএস ওপেন জিতেছেন। এ ছাড়া ২০১৪ সালে সুইজারল্যান্ডের হয়ে ডেভিস কাপ জেতেন। তিনবার হপম্যান কাপ জিতেছেন। ২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিক্সে ডাবলসে সোনা জেতেন। সিঙ্গলসে ২০১২ লন্ডন অলিম্পিক্সে রুপা জয় করেন। এছাড়াও ছয়বার এটিপি ট্যুর চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি।

ফেডেরার ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্ত্রী মিরকা, সন্তানদের এবং নিজের দলকে। ধন্যবাদ জানিয়েছেন পরিবারের অন্য সদস্য এবং কোর্টের প্রতিপক্ষদেরও।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন