English

28 C
Dhaka
সোমবার, নভেম্বর ২৮, ২০২২
- Advertisement -

কোহলি এখন ভারতীয় দলের ‘বিরাট’ বোঝা!

- Advertisements -

ভারতীয় ক্রিকেটে সর্বকালের সেরা ব্যাটারদের অন্যতম ভাবা হতো তাকে। মনে করা হতো, শচিন টেন্ডুলকারের ‘সেঞ্চুরি’র সেঞ্চুরি রেকর্ড ভাঙতে পারেন কেবল তিনিই। কোহলিকে এখন আর তেমনটা তো মনে করা হচ্ছেই না, বরং দিন যত যাচ্ছে তত তিনি হয়ে উঠছেন দলের ‘বিরাট’ এক বোঝা।

Advertisements

খোদ ভারতীয় ক্রিকেটেই গুঞ্জন উঠে গেছে, কোহলিকে নিয়ে এবার ভাবার সময় হয়েছে। জোর করে চার নম্বর পজিশনটা ধরে রেখেছেন তিনি। যে কারণে ভারতীয় দলের পুরো ব্যাটিংটাই নড়বড়ে হয়ে উঠেছে। বরং, এই বোঝা কমিয়ে আনার সময় হয়ে এসেছে বলেই মনে করছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটাররা।

এজবাস্টন টেস্টে ব্যাট হাতে তো বরাবরের মতোই ব্যর্থতার পরিচয় দিলেন। তারওপর ফিল্ডিংয়ে তার আচার-আচরণ নিয়েই ভারতের সাবেক ক্রিকেটাররা প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন। বিরেন্দর শেবাগ তো জনি বেয়ারেস্টোর প্রথম সেঞ্চুরির জন্য সরাসরি দায়ী করেছেন কোহলিকেই। শেবাগের মতে, কোহলিই রাগিয়ে দিয়েছেন বেয়ারেস্টোকে। যে কারণে, দ্রুত গতিতে সেঞ্চুরি করেছেন তিনি।

ভারতীয় মিডিয়াগুলো প্রশ্ন তুলছে, ‘দলে থেকে কি দলের ক্ষতি করছেন বিরাট কোহলি? দলের বোঝা বাড়িয়ে দিচ্ছেন? রোববার ফিল্ডিংয়ের সময় তার আচরণ এবং ব্যাট হাতে তার ব্যর্থতা দেখে এমন প্রশ্নই প্রকট হয়ে উঠেছে। স্লেজিং করে একদিকে দুরন্ত ছন্দে থাকা বেয়ারস্টোকে আরও ভাল খেলতে তাতিয়ে দিলেন। আর অন্যদিকে আরও একবার ব্যর্থ হয়ে তিনি জয়ের গুরু দায়িত্ব ঠেলে দিলেন অন্যদের কাঁধেই। এরপরও ব্যাটিং অর্ডারের চার নম্বর জায়গাটি আঁকড়ে ধরে বসে থাকবেন কোহলি? টিম ম্যানেজমেন্টের এবার হয়তো সত্যিই ভাবার সময় এসেছে।’

Advertisements

কোহলির ব্যাটিং পারফরম্যান্স কেবলই নিম্নমুখি। নেতৃত্ব ছেড়ে যেখানে জো রুট নিজের ব্যাটিংকে নিয়ে গেছেন কিংবদন্তির পর্যায়ে, একের পর এক ম্যাচে সেঞ্চুরি করছেন, সেখানে নেতৃত্ব ছাড়ার পর যেন আরও মিইয়ে গেলেন কোহলি। নিজেকে ফিরেই পাচ্ছেন না। না সাদা পোশাকে, না রঙিন পোশাকে, আর না আইপিএলে।

সর্বশেষ আইপিএলে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে কোহলির ব্যাটিং ছিল যারপরনাই হতাশাজনক। ১৬ ম্যাচের প্রতিটিতেই খেলেছেন তিনি। ৩বার শূন্য রানে আউট হয়েছেন। কেবল দুটি হাফ সেঞ্চুরি। সব মিলিয়ে করেছেন ৩৪১ রান।

সবচেয়ে বড় কথা ২০১৯ সালের নভেম্বরে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বশেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন বিরাট কোহলি। সেই ম্যাচে তার ব্যাট থেকে আসে ১৩৬ রানের ইনিংস। এরপর প্রায় আড়াই বছর পার হয়ে গেলো। টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি এবং ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট মিলিয়ে খেলেছেন ১১০টিরও বেশি ইনিংস। কিন্তু তিন অংকের দেখা আর পেলেন না তিনি।

আইপিএলেও সর্বশেষ সেঞ্চুরি করেছিলেন কোহলি কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সেই। ২০১৯ সালের ১৯ এপ্রিল কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ৫৮ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। গত এপ্রিলেই আইপিএল চলাকালীন শততম ইনিংসে সেঞ্চুরি না পাওয়ার বাজে রেকর্ডটি গড়েছিলেন। তখন এক ক্রিকেট ভক্ত হিসেব দিয়েছিল, ১০০ ইনিংসের মধ্যে ১৭ টেস্ট, ২১ ওয়ানডে, ২৫ টি-টোয়েন্টি এবং ৩৭টি আইপিএলের ম্যাচ ছিল।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ভারতের বিশ্বজয়ী অধিনায়ক কপিল দেব বলেছিলেন, ‘কোনও ব্যাটার লাগাতার ব্যর্থ হলে তাকে নিয়ে সমালোচনা হবেই। তা তিনি শচিন টেন্ডুলকার হোন কিংবা বিরাট কোহলি।’

এ কথা অস্বীকার করার প্রশ্নই ওঠে না যে কোহলির ঝুলি অজস্র রেকর্ডে ভর্তি। একের পর এক দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়েছেন এককালে; কিন্তু সেই সাফল্যের সার্টিফিকেট দেখিয়ে আর কতদিন তার ব্যর্থতাকে ধামাচাপা দেওয়া সম্ভব? উত্তর এখনও অধরা। তবে এজবাস্টন টেস্টে প্রথম ইনিংসে ১১ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে ২০ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরা কোহলির চোখমুখ দেখলে মন খারাপের চেয়ে বেশি রাগই হচ্ছিল দর্শকদের। নিজের অফ ফর্ম নিয়ে যেন একেবারেই চিন্তিত নন তিনি। বরং ‘রাজা’র রাজত্ব গেলেও রয়ে গেছে ফাঁপা আগ্রাসন। যেখানে দায়বদ্ধতার ছিটেফোঁটাও নেই।

প্রথম ইনিংসে বেয়ারেস্টোকে কটাক্ষ করে যেন ইংল্যান্ডের কাজটা আরও সহজ করে দেন কোহলিই। ঘা খাওয়া বাঘের মতো তেড়েফুঁড়ে উঠে একেবারে সেঞ্চুরিই করে ফেলেন ইংলিশ মিডল অর্ডার ব্যাটার। তাতেই প্রায় ৩০০’র (২৮৪) কাছাকাছি পৌঁছে যায় ইংল্যান্ডের রান। দ্বিতীয় ইনিংসে তো এই বেয়ারেস্টো আরো এক সেঞ্চুরি করেই ইংল্যান্ডের জয় ছিনিয়ে আনেন।

২০১৯ সালে কোহলির সর্বশেষ টেস্ট সেঞ্চুরির পর এখন পর্যন্ত আরও ১৫৯টা টেস্ট সেঞ্চুরি হয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১২টি সেঞ্চুরি এসেছে জো রুটের ব্যাট থেকে। ৬টি করেছেন জনি বেয়ারেস্টো। ৫টি সেঞ্চুরি এসেছে মার্নাশ লাবুশেন এবং দিমুথ করুনারত্নে’র ব্যাট থেকে। এজবাস্টনে দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি হাঁকানো বেয়ারস্টোর সর্বশেষ ৫ ইনিংসে এটা ৪র্থ শতক।

১০২ টেস্ট খেলে ফেলা কোহলির সেঞ্চুরির সংখ্যা ২৭টি। ২৬০টি ওয়ানডে খেলে সেঞ্চুরি করেছেন ৪৩টি। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে কোনো সেঞ্চুরি নেই, তবে ফ্রাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টিতে রয়েছে ৫টি সেঞ্চুরি।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন