English

23 C
Dhaka
সোমবার, জানুয়ারি ২৪, ২০২২
বাড়ি প্রচ্ছদ

শিবগঞ্জে অসহায় পরিবারের মাঝে ছাগল বিতরণ

ঢাকাস্থ শিবগঞ্জ উপজেলা কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে গরীব অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাগল বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (১৫ জানুয়ারী) বিকালে শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়ন পরিষদে এ ছাগল বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।

ছাগল বিতরণকালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিহার ইউপি চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, ঢাকাস্থ কল্যাণ সমিতির প্রচার সম্পাদক মোঃ আব্দুল আলিম, মুশফিকুর রহমান বিপুল, মোসলেহ উদ্দিন সোহেল, নজিবুল্লাহ, সাংবাদিক রবিউল ইসলাম মাসুদ রানা মিলন, কামরুল হাসান প্রমুখ। মনোয়ারা বিবি, খাজুর বিবি, সাদেক আলী, স্বপনা বিবি, আমেনা বিবির বলেন, ছাগলগুলো লালন পালন করে তারা আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হতে পারবেন।

বগুড়ার গাবতলীতে চাঞ্চল্যকর জাকির হত্যা মামলায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বগুড়ার গাবতলী উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতায় চাঞ্চল্যকর জাকির হোসেন নামের যুবক হত্যা মামলায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মামলায় মেম্বার প্রার্থী ফেরদৌস হাসান মিঠুসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এবং অজ্ঞাত আরও ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে জাকির হোসেনের স্ত্রী শাপলা খাতুন বাদী হয়ে বগুড়ার গাবতলী মডেল থানায় এ মামলা করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাবতলী থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম। তিনি বলেন, জাকির হত্যার ঘটনা তদন্ত করে দোষীদের বিরেুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ মামলায় এখনো কেউ গ্রেফতার হয়নি। তবে আসামীদে দ্রুত গ্রেফতার করতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত বুধবার ৫ জানুয়ারী ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচন কালে দুপুরে গাবতলী উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউপির জাইগুলি ২নং ওয়ার্ডে গ্রামে দুই ইউপি সদস্য প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। জাকির ওই ওয়ার্ডের টিউবওয়েল প্রতীক ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী ডা. সাহিদুল ইসলামের কর্মী সমর্থক ছিলেন। এক সময় জাকির ভোট কেন্দ্র থেকে বাহিরে এলে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ১৫ জনের একটি দল তাকে রাম দায়ের কোপে গুরুতর আহত করেন। এসময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

নিহত জাকির গাবতলী উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের জাইগুলি গ্রামের মৃত লয়া মিয়ার পুত্র। নিহত জাকির পেশায় একজন হাউস বিল্ডিং এর রং মিস্ত্রীর কন্টাক্টর ছিলেন। এছাড়াও তিনি নিরাপদ সড়ক চাই বগুড়া জেলা শাখার কার্যনির্বাহী সদস্য ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জাকির তার নিজের নামে একটি জাকির লাইভ টিভি এ্যাকাউন্ট পেজ খুলে জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন ঘটনা ও সমস্যা তুলে ধরে অনলাইনে লাইভ অনুষ্ঠান করতেন। তার একটি ইউটিউব চ্যানেলও ছিল। এছাড়াও তিরি বিভিন্ন সামাজিক মুলক কর্মকান্ড ভিডিও আপলোড করতেন এবং ফেসবুক লাইভ করতেন।

এরই ধারাবাহিকতায় তিনি রামেশ্বারপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী ডা. সাহিদুল ইসলামের পক্ষে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ফেসবুক লাইভ করেন। এতে ডা. সাইদুলের প্রতিপক্ষ ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী ফেরদৌস হাসান মিঠু তার ওপর চরম ক্ষিপ্ত হয়।
গত বুধবারের ভোটে ফেরদৌস হাসান মিঠুকে ভোটে পরাজিত করে ডা. সাহিদুল ইসলাম মেম্বার বিপুল ভোটে বিজয়ী হন।

মহাস্থানে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ২টি হোটেল ও কীটনাশক দোকানে ১৬ হাজার টাকা জরিমানা

বগুড়ার মহাস্থানে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক আইন ২০০৯ এর বিভিন্ন ধারায় মহাস্থান কলেজ গেট সংলগ্ন হাটের পাশে অবস্থিত ৩টি প্রতিষ্ঠানকে ১৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) বগুড়া জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের সহায়তায় সহকারী প‌রিচালক ইখতেখারুল আলম রিজভীর নেতৃত্বে মহাস্থান শিবগঞ্জ রোডের কলেজ গেটের সামনে এ অভিযান পরিচালিত হয়।
এসময় সহকারী প‌রিচালক ইখতেখারুল আলম রিজভী নিরাপদ নিউজকে কে জানান, মহাস্থান “ভাই ভাই” হোটেলে অভিযান চালিয়ে দেখা যায়, সেখানে অবৈধ প্রক্রিয়ায় মানুষের জীবন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরী করা হচ্ছে। সেখানে ভোক্তা সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪৩ ধারায় ৩ হাজার ও একই ভাবে পাশের সোহাগ হোটেলে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এরপর একই মার্কেটে মেসার্স করতোয়া ট্রেডার্স বীজ ও কীটনাশক দোকানে মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি ও সংরক্ষণের দায়ে ২০০৯ এর ৫১ ধারায় ওই প্রতিষ্ঠানকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জনস্বা‌র্থে এ কার্যক্রম অব্যাহত থাক‌বে বলে জানান, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ইখতেখারুল আলম রিজভী।

নিরাপদ সড়ক চাই বগুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে মহাস্থানে শীতবস্ত্র বিতরণ (ভিডিও)

গরীব অসহায় ও ছিন্নমূল মানুষের শীতে যেন চরম দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সেই লক্ষ্যে নিরাপদ সড়ক চাই বগুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে ঐতিহাসিক মহাস্থানে শীতবস্ত্র বিতরন করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ৮টায়, মহাস্থান বাজারের পাশে স্থানীয় সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে ২য় ধাপে প্রায় অর্ধশতাধিক কম্বল বিতরণ করা হয়। নিরাপদ সড়ক চাই জেলা শাখার সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতা এবং অক্লান্ত পরিশ্রমে সফলভাবে এ কর্মসূচি সম্পন্ন করা হয়।

শীত নিবারণকারী কম্বল পেয়ে যেন খুশির শেষ ছিল না ছিন্নমূল মানুষগুলোর। কম্বল পেয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে এক বৃদ্ধা বলেন, ‘প্রচণ্ড শীতে আমাদের রাত কাটাতে খুব কষ্ট হতো। এখন বেশ ভালো ভাবে রাতে ঘুমাতে পারবো। আল্লাহ উনাদের ভালো করুক।’

সংগঠনের সভাপতি রোটাঃ মোস্তাফিজার রহমান বলেন, ‘শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘব করতে সমাজের সকল বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত। প্রতিবছরই আমরা বগুড়ার বিভিন্ন এলাকায় গরীব, অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করে আসছি। তারই ধারাবাহিকতায় আমাদের এ কার্যক্রম। ভবিষ্যতেও বগুড়া নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠন সমাজ সেবামূলক বিভিন্ন কার্যক্রমে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সভাপতি রোটাঃ মোস্তাফিজার রহমান, সাধারণ সম্পাদক রকিবুল ইসলাম সোহাগ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী শিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক আল-আমীন, দপ্তর সম্পাদক জাহেদুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইমরান তালুকদার নিপু, রায়হান রহমান, জিল্লুর রহমান, আব্দুল আলিম, শফিকুল ইসলাম, আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহাস্থান প্রেসক্লাবের সভাপতি আনিছুর রহমান মিটু সাধারণ সম্পাদক এসআই সুমন সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন এখানে…

বগুড়ায় কলেজ ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

বগুড়া সদরের শহরতলীর খান্দার এলাকায় মোহন (২০) নামে এক কলেজ ছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত মোহন শহরের ফুলতলা এলাকার শুকুর আলীর পুত্র এবং বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (৩০শে নভেম্বর) রাত পৌনে ১১টার দিকে মোহন তার ২ বন্ধু বাপ্পী ও লিখনের সাথে দাওয়াত খেয়ে বাড়ির পথে রওনা দেন। এসময় খান্দারের সি,এন্ড,বি গুদামের সন্নিকটে বেশ কয়েকজন দুর্বৃত্তরা তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। তাদের সাথে বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে প্রতিপক্ষরা মোহনকে ছুরিকাঘাত করে। সাথে থাকা মোহনের ২বন্ধু এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা লাঠি দিয়ে তাদেরকেও মারপিটে আহত করে। এসময় তাদের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে রাত ১২টার দিকে মারা যায়।

মোহনের কোমরের নিচে ও উরুতে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে পুলিশ তাৎক্ষণিক কোন কারণ জানাতে পারেনি। তবে বগুড়ার ফুলতলা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে বলে স্বনির্ভর যোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামীম হোসেন বলেন, মোহনের সাথে আহত অবস্থায় ২ বন্ধু হাসপাতালে আসলেও তারা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে মোহনকে রেখে চলে গেছে।

সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, পূর্ব কোনো বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করতে মোহনের ২ বন্ধুকে জিজ্ঞাসা করা হবে। তারা হত্যাকারীদের চিনতে পেরেছে কিনা বিভিন্ন বিষয় মাথায় নিয়ে ঘাতকদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

বগুড়া সদরে ৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মাত্র ২টিতে নৌকার জয়, বাকী গুলো ভরাডুবি

বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে মাত্র দুটিতে জয়লাভ করেছেন আওয়ামী লীগের নৌকা। আর বাকী ৬টিতে জয়লাভ করেছে স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থী। আওয়ামী লীগ সমর্থিত নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হলেন, নামুজা ইউনিয়নে রফিকুল ইসলাম রফিক তিনি পেয়েছেন, ৯৪৫৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন মোটরসাইকেল মার্কা প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী এসএম রাসেল (মামুন) তিনি পেয়েছেন, ৯০০১ ভোট।

এবং শাখারিয়া ইউনিয়নের নৌকা প্রার্থী এনামুল হক ৪০৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র মোটরসাইকেল মার্কা নাজমুল হাসান পেয়েছেন, ৩৮০৬ ভোট।

এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে অন্যান্য নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হলেন, বগুড়া শেখেরকোলা ইউনিয়নে রশিদুল ইসলাম মৃধা মোটরসাইকেল প্রতীকে ৫৯১৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকার প্রার্থী কামরুল হাসান ডালিম পেয়েছেন, ৩৯৩৬ভোট।

লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়নে মোটরসাইকেলের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার জুলফিকার আবু নাসের আপেল ৫৬৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন, নৌকার প্রার্থী আজাহারুল ইসলাম রিপু তিনি পেয়েছেন, ৩৮৪৩ ভোট।
নিশিন্দারা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র মোটরসাইকেল মার্কা প্রার্থী সহিদুল ইসলাম ৬৯৯২ ভোট পেয়ে পুনরায় বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নৌকার প্রার্থী রিজু হোসেন পেয়েছেন, ১৬১২ ভোট।

সাবগ্রাম ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদ উদ্দীন ৪০২৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে নৌকার প্রার্থী ইসমাইল হক সরকার পেয়েছেন ৪০১২ ভোট।

গোকুল ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউর রহমান জিয়া আনারস প্রতীকে ৫৭৫৯ ভোট পেয়ে জয়ী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ঘোড়া মার্কা এ্যাডভোকেট সোলাইমান আলী পেয়েছেন, ৫৩৯১ নৌকার প্রতীকে সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজ পেয়েছেন ৫০৮৮ ভোট। এবং নুনগোলা ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস মার্কা প্রতীকে বদরুল আলম ৬৮৮৫ ভোটে জয় লাভ করেছেন। কার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হিসেবে লড়াই করেছেন, অটোরিকশা প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রশিদ তিনি পেয়েছেন ৬৬৯৬ ভোট। নৌকার প্রার্থী আলীম উদ্দিন পেয়েছেন ১২২ ভোট। গত ইউপি নির্বাচনে এসব ইউনিয়নের বেশিরভাগ চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ সমর্থিত নৌকার প্রার্থী হয়ে বিজয় হয়ে ছিলেন। কিন্তু সদ্য ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ২০২১ইং নির্বাচনে মাত্র ২ জন নৌকা মার্কায় বিজয়ী হয়েছেন। আওয়ামী অর্থাৎ নৌকার এমন জয়ে জনসাধারণ নৌকার ভরাডুবি বলে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।